বুধবার, আগস্ট ২১, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

ঘটছে দূর্ঘটনা

কলারোয়ায় ব্যাটারীভ্যান-ইজিবাইকের সামনের এলইডি লাইটে দিশেহারা পথচারীরা

ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও মটরভ্যান নামটা সহজ হলেও সড়ক যোগাযোগ পথে বিষয়টা খুবই জটিল। ইজিবাইক ও মটরভ্যানে সহজেই যে কোন স্থানে যাওয়া যায়, মালামাল ওঠানামা সহজ হয়, নবীন-প্রবিণদের গাড়ীতে উঠতে কোন বেগ পোহাতে হয়না, জ্বালানী হিসেবে পেট্রোল বা গ্যাসের খরচ নেই। অথচ এই গাড়ীটি আমাদের নাগরিক জীবনে বড় কঠিন বিপদ আনতে পারে তা সাধারণ মানুষের ধারণাতেও আসে না।

ইজিবাইক ও ব্যাটারী চালিত অটোভ্যানের সামনের হেডলাইট হিসেবে এলইডি সাদা লাইট যে কিরূপ ভোগান্তিকর ও বিপদজনক তা ভূক্তভোগি ও পথচারীরা বেশ টের পাচ্ছে। ঘটছে ছোটখাটো দূর্ঘটনাও। মৃত্যুর হাতছানিতে মুখোমুখি পথচারীরা। অথচ সংশ্লিষ্ট প্রশাসন কিংবা দায়িত্বশীলরা বরাবরই নিরব থাকায় প্রতিকারের ব্যবস্থা হচ্ছে না। উপরন্তু বেশ কয়েকটি স্পট থেকে ওই সকল যানবাহন থেকে তোলা হচ্ছে মাসোহারার টাকা।

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় এমন দৃশ্যপট হরহামেশা চলছে।

সরেজমিনে দেখা যায় ও ভূক্তভোগিরা জানান- ব্যাটারিচালিত ভ্যান ও ইজিবাইকের সামনের হেডলাইট হিসেবে ব্যবহৃত সাদা ও তীক্ষ্ণ লাইটের আলোয় রাতের বেলা বিপরীতমুখি যাতায়াতকারীরা পড়েন চরম বিপাকে। রাতে সামনে থেকে আসা গাড়ির ওই লাইটের কারণে বিপরীতমুখি পথচারী, বিভিন্ন গাড়ির চালকদের চোখ ধাধিয়ে যায়, সাময়িকের জন্য ওই লাইট ছাড়া কিছুই দেখা যায় না। মুহুর্তের মধ্যে চোখে আলোর ঝলকানির কারণে বিদ্যুত বেগে চোখে দেখা না যাওয়ায় মাঝে মধ্যে ঘটছে দূর্ঘটনাও। আর সড়কের খনাখন্দকের স্থানগুলোতে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে।
বৈদ্যুতিক চার্জারের ব্যাটারী চালিত এ যানবাহনের পাশাপাশি বর্তমানে কেউ কেউ তাদের মোটরসাইকেলের হেডলাইটের নিচেও এমন সাদা এলইডি লাইট সংযুক্ত করছেন।

ফলে আধাঁর রাতে এহেন অনিয়ন্ত্রিত লাইটের সাথে সাথে ওই সকল যানবাহনের বেপরোয়া গতি তোয়াক্কা করছে না অন্যদের। আর অপ্রাপ্ত বয়স্ক বা তুলনামূলক ছোট ছেলেদের চালকের আসনে প্রায়ই দেখা যায়। এর পাশাপাশি যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কে কলারোয়ার তুলশীডাঙ্গা সোনিয়া ফিলিং স্টেশনের পার্শ্ববর্তী মিম ছাত্রাবাসের সামনে এবং কলারোয়া সরকারি কলেজের প্রধান গেটের পাশের মোড়ে ব্যাটারিচালিত মোটরভ্যান, ইজিবাইকসহ স্থানীয় যাত্রীবহনকারী যানবহন থেকে নিয়মিত চাঁদা তুলতে দেখা যায়।
ভূক্তভোগিরা জানিয়েছেন- গাড়ি চালাতে গেলে মাসিক চাঁদা হিসেবে গাড়িপ্রতি ১৫০টাকা করে সংশ্লিষ্ট চাঁদাবাজদের দিতে হচ্ছে। সুনির্দিষ্ট ছবিসম্বলিত স্লিপের মাধ্যমে উপজেলাব্যাপী এরূপ চাঁদা উত্তোলন করা হচ্ছে বলে তারা জানান। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মারধোরসহ বিভিন্ন বিড়ম্বনা ও হয়রানী করা হয়ে থাকে।

বিরক্তিকর সামনের এলইডি হেডলাইট অপসারণ এবং গাড়ি থেকে চাঁদা উত্তোলন বন্ধে ঊর্দ্ধতন প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভূক্তভোগিসহ সচেতন মহল।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ার কেঁড়াগাছিতে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ

কলারোয়া উপজেলার কেঁড়াগাছি হাইস্কুল ফুটবল মাঠে এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ার কাজীরহাটে প্রীতি ফুটবল ম্যাচে স্বাগতিকদের জয়

কলারোয়ার কাজীরহাটে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী’রবিস্তারিত পড়ুন

দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকায় কলারোয়া প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সরদার জিল্লুর

সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত বহুল প্রচারিত দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার কলারোয়াবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৬১ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত
  • সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৩৯ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত
  • কলারোয়ায় মারামারি মামলায় যুবক গ্রেফতার
  • কলারোয়ায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
  • সাতক্ষীরায় মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ২৮
  • কলারোয়ায় পরিবহনের ধাক্কায় গ্রামপুলিশ আহত
  • কলারোয়ার বালিয়াডাঙ্গায় মাত্র ১কি.মি. রাস্তা সংষ্কারের অভাবে দূর্ভোগ চরমে
  • কলারোয়া সরকারি কলেজ চত্বরে ছাত্রলীগের বৃক্ষায়ণ কর্মসূচি
  • কলারোয়ার হঠাৎগঞ্জ মাদরাসায় হামদ নাথ প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা
  • ভারি বর্ষণে প্লাবিত কলারোয়ার বিভিন্ন এলাকা
  • কলারোয়ার সুলতানপুরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টে সোনাবাড়িয়া ফাইনালে
  • কলারোয়ায় ভুয়া সাংবাদিক মাদক ব্যবসায়ী রাজুসহ ৬ যুবক আটক