বুধবার, জুলাই ২৪, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

আরো খবর...

কেশবপুরে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় কলারোয়ার রোগির মৃত্যু ॥ অভিযোগ

যশোরের কেশবপুরে হেল্থ কেয়ার হসপিটাল (প্রা.) লিমিটেডে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় শুক্রবার বিকেলে এক হতদরিদ্র মৎস্যজীবীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের স্ত্রীর দাবি, জোর করে রাইস টিউব পরানোর সময় খাদ্য নাড়ি ছিড়ে যাওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ মৃত্যুর ১৫ মিনিটের মধ্যেই হসপিটাল কর্তৃপক্ষ ভাড়াটে মাস্তান এনে হুমকি দিয়ে নিহতের লাশ তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী সুমিত্রা বিশ্বাস রোববার যশোরের সিভিল সার্জন, কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ২১ জুন সকাল ৯ টার দিকে পার্শ্ববর্তী কলারোয়া উপজেলার দেয়াড়ার কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত অনন্ত বিশ্বাসের ছেলে মৎস্যজীবী সচিন বিশ্বাসের প্রচন্ড জ্বর ও পেট ব্যথা শুরু হলে কেশবপুর শহরের হেল্থ কেয়ার হসপিটাল (প্রাঃ) লিমিটেডে আনা হয়।
এ সময় ভর্তি ফি- ১‘শ, ডাক্তার ফি-৩‘শ, পরীক্ষা নিরীক্ষা ফি- ২ হাজার, ওষুধ ক্রয় বাবদ ১৪‘শ টাকাসহ মোট ৩ হাজার ৮‘শ টাকা কাউন্টারে জমা দেয়ার পর তাকে ভর্তি করা হয়।

সচিনের স্ত্রী সুমিত্রা বিশ্বাস জানায়, তার স্বামীকে বেডে নিয়েই কোন পরীক্ষা-নীরিক্ষা ছাড়াই ডাক্তার সামসুজ্জামান নাকের ভিতর রাইস টিউব পরায়। কিছুক্ষণ পর রোগীর নাক, মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে থাকলে আমি বিষয়টি হসপিটালের ডাক্তার সামসুজ্জামানকে জানিয়ে রাইস টিউব খুলে দিতে অনুরোধ করি। এ সময় ওই ডাক্তার আমাকে জানায় টিউব খুলে দিলে যদি রোগী মারা যায় তার দায়িত্ব তোমাদেরই নিতে হবে, আর টিউব পরানোকালে মৃত্যু হলে তার দায়িত্ব আমিই নেব। তখন সে স্বামীর কাছে চলে যায়। এর প্রায় ৩ ঘন্টা পর সচিনের মৃত্যু হয়। স্বামীর মৃত্যুর পর ডাক্তার সামসুজ্জামান তাকে জানায় তার স্বামীর যক্ষা ও কিডনি নষ্ট ছিল যে কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু ওই হসপিটালের স্বামী সচিনের ডাক্তারী পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্টে যক্ষা বা কিডনীর কোন সমস্যা নেই বলে উল্লেখ করা হয়। রাইস টিউব সঠিক ভাবে না দেওয়ায় রক্ত ক্ষরণে আমার স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। আমার স্বামীর যক্ষা ও কিডনি নষ্ট ছিল না।

মৃত্যুর ১৫ মিনিটের মধ্যেই ডাক্তার সামসুজ্জামান শহরের কিছু ভাড়াটে মাস্তান এনে ভয় দেখিয়ে জোর পূর্বক এ্যাম্বুলেন্সযোগে লাশ বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। শনিবার (২২ জুন) দুপুর সাড়ে ১২ টার সময় অর্থাভাবে দাহ করতে না পেরে তার মরা দেহ কেশবপুর উপজেলার ত্রিমোহিনী মহাশ্মাশানের পাশে মাটি চাপা দেয়া হয়েছে।

নিহতের ভাই অশোক বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন, তিনি ভাইয়ের সৎকারের কাজ সম্পন্ন করে শনিবার বিকেলে ওই হসপিটালে গিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্ট চান। তখন হসপিটাল কর্তৃপক্ষ রিপোট দেবে না বলে তালবাহানা শুরু করে। এ সময় থানায় মামলাসহ সাংবাদিকদের জানানোর কথা বললে তড়িঘড়ি করে ৩ ঘন্টা পর রিপোর্ট দেয়া হয়। এ সময় তিনি তাদের কাছে প্রশ্ন করেন, রিপোট সঠিক আছে ? হুমকি দিয়ে বলে যা দেয়া হয়েছে তাই নিয়ে চলে যাও এবং সচিনের স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে এসো কিছু টাকা দিয়ে দেব। তবে শর্ত রয়েছে, আদালত বা থানায় অভিযোগ করলে আমরা কোন সহযোগিতা করতে পারবো না।

স্থানীয় সাপ্তাহিক দেশজনতা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক রুহুল আমিন খান ও স্টাফ রিপোর্টার সোহেল পারভেজ হেল্থ কেয়ার হসপিটাল (প্রাঃ) লিমিটেডে রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে সংশ্লিষ্ট ডাক্তার সামসুজ্জামান তাদের সঙ্গে চরম দূব্যবহার করে বলেন, রোগীর যক্ষা ছিল এবং কিডনি ড্যামেজ হওয়ার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। তাছাড়া রোগীর স্বজনদের এ বিষয়ে কোন অভিযোগ নেই তাহলে আপনারা (সাংবাদিক) তথ্য সংগ্রহ করছেন কেন। কেনই বা কাগজে লিখছেন। সাংবাদিকরা হসপিটাল বানান এবং ডাক্তার হয়ে চিকিৎসা করেন। ডাক্তার সামসুজ্জামানের সাংবাদিক সম্পর্কে কুরুচিপুর্ণ মন্তব্য করার ঘটনায় ওই পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক রুহুল আমিন খান কেশবপুর উপজেলা নিবাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে ডাক্তার সামসুজ্জামান বলেন, সচিনের যক্ষা ছিল এবং কিডনি ড্যামেজ হওয়ার কারণে মৃত্যু হয়েছে।
কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহিন বলেন, লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডাক্তার দীলিপ রায় বলেন, এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী সুমিত্রা বিশ্বাসের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

৩২জন মেধাবী সন্তানরা পেল শিক্ষা বৃত্তির চেক

কেশবপুরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অগ্রগতি সংস্থার উদ্যোগে ও পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউ-েশন (পিকেএসএফ) এর সহযোগীতায় অগ্রগতির দলীয় সদস্য’র ৩২ জন মেধাবী সন্তানরা পেল শিক্ষা বৃত্তির চেক। রোববার সকালে সংস্থার কার্যালয় চত্বরে ওই ১২ হাজার টাকার করে শিক্ষা বৃত্তির চেক প্রদান করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অগ্রগতি সংস্থার সভাপতি স্বপন কুমার ম-ল। এ সময় বক্তব্য রাখেন, অগ্রগতি সংস্থার সম্পাদক ও নির্বাহী পরিচালক মো: ইসমাইল হোসেন, সদস্য ও বীর মুক্তযোদ্ধা শ্রী কালিপদ মন্ডল, সদস্য খলিলুর রহমান, শিক্ষার্থী চন্দনা মন্ডল, জন্নাতুল ফেরদৌস, সুব্রত গাইন।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমন্বয়কারী শান্তনু মল্লিক, প্রধান হিসাবরক্ষক আনন্দ মোহন সরকার, অভিভাবক ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ায় জয়নগরে আ.লীগের কর্মী সমাবেশ

কলারোয়ায় জয়নগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আয়োজনে কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুরবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় দ্রুতগতির ইঞ্জিনভ্যানের ধাক্কায় মহিলা নিহত

কলারোয়ায় দ্রুতগতির ইঞ্জিনভ্যানের ধাক্কায় এক মহিলা নিহত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় পিতাসহ ৩জনকে মারপিট করলো পুত্র!

কলারোয়ায় জমি ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে ৮০বছরের বৃদ্ধ পিতাসহ ৩ব্যক্তিকে পিটিয়েবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় মৎস্য সপ্তাহের সমাপনী অনুষ্ঠান
  • কলারোয়ার সোনাবাড়িয়ায় প্রীতি ফুটবল ম্যাচে স্বাগতিকদের জয়
  • কলারোয়ার কাজীরহাটে প্রীতি ফুটবল ম্যাচে স্বাগতিকদের হারিয়ে খোরদোর জয়
  • কলারোয়ায় নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা
  • কলারোয়ার খোর্দ্দ হাইস্কুলে বিতর্ক ও রচনা প্রতিযোগিতা
  • কলারোয়া সীমান্তে ইয়াবা উদ্ধার
  • কলারোয়ার জয়নগরে নবম শ্রেণীর ছাত্রীর আত্মহত্যা
  • ভারতের কালাম যুব নেতৃত্ব পুরষ্কারের তালিকায় কলারোয়ার মেয়ে কান্তা
  • সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ১৭
  • কলারোয়ার খোরদো’য় শিক্ষার্থীদের দুর্নীতি দমন বিতর্ক প্রতিযোগিতা
  • বৃষ্টি কামনায় কলারোয়ায় ফসলি মাঠে ইস্তেস্কার নামাজ পড়লেন এলাকাবাসী
  • কলারোয়ায় বর্ষা মৌসুমের টমেটো চাষে সাফল্যের আলো দেখছেন কৃষকরা
  • error: Content is protected !!