সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি মারা গেছেন

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন বিজেপি দলের প্রবীন রাজনীতিক অরুণ জেটলি মারা গেছেন। দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ থাকার পর শনিবার দিল্লির ‘অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স (এআইআইএমএস)’ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিলো ৬৬ বছর।
ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। গত দু’বছর ধরেই তিনি বেশ শারীরিক অসুস্থতায় ভূগছিলেন। শ্বাসকষ্টের কারণে গত ৯ আগস্ট থেকে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

২০১৮ সালে তার কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিলো। এরপর থেকেই অনেকটা আড়ালে চলে যান তিনি। এর আগে ২০১৪ সালে ডায়াবেটিসের কারণে শরীরের ওজন বেড়ে যাওয়ায় ব্যারিয়েট্রিক সার্জারিও হয়েছিলো তার। মোদি সরকারের প্রথম মেয়াদে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালণ করেছিলেন তিনি। পাঁচ বছর অর্থ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব সামলানোর পর অসুস্থতার কারণে নিজেই মোদীর এবারের সরকারে না থাকার ইচ্ছা জানিয়েছিলেন তিনি। একই কারণে নির্বাচনও করেননি।

অসুস্থতার কারণে মোদীর বিগত সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজও এবারের সরকারে থাকেননি। সম্প্রতি তারও মৃত্যু ঘটে।

বিজেপি নেতৃত্বাধীন অটল বিহারি বাজপাইর সরকারেও মন্ত্রী ছিলেন পেশায় আইনজীবী অরুণ জেটলি।

ভোটের রাজনীতিতে অসফল হলেও মোদীর সরকারে নানা সিদ্ধান্ত গ্রহণ এবং জোটের রাজনীতিতে ভূমিকার জন্য অরুণ জেটলি ছিলেন গুরুত্বপূর্ণ।

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে দেখতে গিয়েছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

অরুণ জেটলির জন্ম ১৯৫২ সালের ২৮ ডিসেম্বর নয়া দিল্লিতে। তার বাবা মহারাজ কিষাণ জেটলিও ছিলেন একজন আইনজীবী।

হিসাব বিজ্ঞানে পড়াশোনার পর দিল্লি ইউনিভার্সিটি থেকে এলএলবি ডিগ্রি নেন অরুণ জেটলি। অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের নেতা ছিলেন তিনি; দিল্লি ইউনিভার্সির ছাত্র সংসদের সভাপতিও ছিলেন।

ছাত্র সংগঠনে নেতৃত্ব দেওয়ার পর গত শতকের ৮০ দশকে বিজেপিতে সক্রিয় হন অরুণ জেটলি। ১৯৯১ সাল থেকে তিনি দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটিতে ছিলেন।

১৯৯৯ সালে বাজপাইর সরকারে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান অরুণ জেটলি; পরে আইন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও তার উপর চেপেছিল।

কংগ্রেস আমলে ২০০৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত রাজ্যসভায় বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

অরুণ জেটলি বিয়ে করেন কাশ্মীরের সাবেক অর্থমন্ত্রী গিরিধারী লাল ডোগরার মেয়ে সঙ্গীতাকে। তাদের দুই ছেলে-মেয়েও আইনজীবী।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

একই রকম সংবাদ সমূহ

মন্ত্রীর যাওয়ার রাস্তায় দুই জীবিতকে কবর দিয়ে প্রতিবাদ!

সড়ক বেহাল। ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। দীর্ঘদিন ধরেই দুরবস্থার অবসান হচ্ছেবিস্তারিত পড়ুন

শিগগিরই বাংলাদেশের সব টিভি চ্যানেল ভারতে দেখা যাবে: তথ্যমন্ত্রী

শিগগিরই বাংলাদেশের সব চ্যানেল ভারতে দেখা যাবে বলে আশা প্রকাশবিস্তারিত পড়ুন

ঝুঁকি নিয়ে ছবি তুলে আলোচনায় দম্পতি

জীবনের ঝুকি নিয়ে পাহাড়ের চূড়ায় এক দম্পতির ঝুলন্ত ছবিটি ইতোমধ্যেবিস্তারিত পড়ুন

  • এক বছর পরও নড়াচড়া করে মৃতদেহ!
  • ফুটবল স্টেডিয়াম হয়ে গেল ঘন জঙ্গল!
  • গাছের চারা খাওয়ার অপরাধে ২ ছাগল ‘গ্রেফতার’ !!
  • অদ্ভুদ কারণে এসব ডিভোর্স !!
  • বৃদ্ধ সেজে পালাতে গিয়ে বিমানবন্দরে গ্রেফতার যুবক!
  • বিশ্বের শীর্ষ নারী নেতৃত্বের তালিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • ক্ষমতা থাকলে হিন্দুদের দেশ থেকে বের করে দেখান: ভারত সরকারকে চ্যালেঞ্জ
  • মেয়ে জন্ম নিলেই লাগানো হয় ১১১টি গাছ!
  • এসএমএস’র উত্তর না দেওয়ায় স্বামীকে তালাক!
  • ভারত একজন অনুপ্রবেশকারীকেও থাকতে দেবে না -অমিত শাহ
  • ৭৪ বছরে যমজ সন্তান জন্ম দিয়ে গড়লেন বিশ্বরেকর্ড!
  • ২০১৯ দুর্গাপুজোয় মায়ের আগমন-গমন কিসে! এর ফলাফলে কোন প্রভাব পড়তে পারে