বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

শ্যামনগরের মুন্সিগঞ্জে ভিজিডি কার্ডের চাউল আত্মসাতের অভিযোগ

শ্যামনগরের মুন্সিগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম কর্তৃক ভিজিডি কার্ডের চাউল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তালিকায় নাম থাকলেও বঞ্চিত হয়েছেন অভিযোগকারীরা।

এ ব্যাপারে খাদিজা, জবেদা সালমা বেগম সহ একাধিক সুবিধা বঞ্চিতরা শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ করে কোন ফল না পেয়ে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের দারস্ত হয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে ও প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়- ভিজিডি চক্র ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে মুন্সিগঞ্জ ইউপি সচিব, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (ইউএনও এর প্রতিনিধি) চেয়ারম্যান আকুল কাশেম মোড়ল, ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান স্বাক্ষরিত ৪০১জনের একটি তালিকা প্রস্তুত করা হয়। সে মোতাবেক ১৬/০৪/১৯ তারিখে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভিজিডির চাউল বিতরণ করা হয়। কিন্তু তালিকায় নাম থাকার স্বত্বেও প্রায় ৪০ জনের মধ্যে অসহায় দরিদ্র পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাউল বিতরণ না করে সমস্ত চাউল আত্মসাত করেছেন।

ভুক্তভোগি খাদিজা, আনছার আলী প্রেসক্লাবে সাংবাদিককের নিকট এ অভিযোগ করেন।

আনছার আলী আরও জানান- চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল একজন বিএনপির লিডার। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান হয়েছেন। আমরা যারা গরিব অসহায় আওয়ামীলীগকে সমর্থন করি তাদের কোন কার্ড না দিয়ে যারা জামাত- শিরিবের ক্যাডার, নাশকতা মামলার আসামী তাদেরকে উক্ত কার্ড প্রদান করেছেন। বর্তমানে তিনি আ’লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে আ’লীগের সর্বনাশ করে যাচ্ছেন। এমনকি সরকারি নীতিমালা অনুসারে পুরাতন কার্ডধারী কেহ নতুন কোন কার্ড পাবেন না কিন্তু ২৭৯নং ক্রমিকে নাজমা পারভীন অবিবাহিত হলে তার নামে নতুন কার্ড দিয়েছে কারণ তার মায়ের নামে ইতিপূর্বে কার্ড ছিল। এখানে চেয়ারম্যান সুচাতরিকতা করেছেন। ২৯২ ও ২৯৫নং ক্রমিক যথাক্রমে মাজিদা ও ময়না বেগমও পুরাতন কার্ডধারী। ৩১২ক্রমিকে রোকেয়া খাতুন একজন ধনী ব্যক্তি। ৩১৫নং ক্রমিকব আরবী বিবি ১২ বিঘা জমির মালিক। ৩১৭নং ক্রমিকে জাহানারা বেগম এর ২তলা বাড়ী কাজ চলমান। এছাড়াও অনেক বিভিন্ন ভাতাভোগিরাও এ সুবিধা পাচ্ছেন। এলজিএসপি ১% টিআর এডিপি বরাদ্দ কাজ না করে টাকা হাওয়া করে দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন। আর সকল অভিযোগ লিখিতভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানানোর পর কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

তারা বলেন- রাতারাতি হয়ত আমাদের নাম পরিবর্তন করে নতুন তালিকা প্রকাশ করেন উনারা। তাই ন্যায্য বিচারের আশায় জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগিরা। জেলা প্রশাসক মহোদয় ‘‘গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করুন’’ মর্মে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় নির্দেশ প্রদান করেছেন।

এ ব্যাপারে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামান মুঠফোনে জানান- আমি কোন অভিযোগ পাই নাই। তবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিব।

একই রকম সংবাদ সমূহ

শ্যামনগরে বিনাধান-১৯ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে মাঠ দিবস

সাতক্ষীরার শ্যামনগরে বিনা কর্তৃক উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল ও স্বল্প জীবনকালবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ২২

সাতক্ষীরা জেলা ব্যাপী পুলিশের মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে মাদক মামলারবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৬১ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

সাতক্ষীরা প্রতিদিনই ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায়বিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৩৯ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত
  • শ্যামনগরে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় দু’টি মামলা :আটক-৪
  • শ্যামনগরে আ.লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ৫জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০
  • কাশিমাড়ীতে ওয়ার্ড আ.লীগের উদ্যোগে শোক দিবস পালন
  • শ্যামনগরে কুরবানীর গোশতে আল্লাহ্ লেখা
  • সাতক্ষীরাসহ সারা দেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত
  • শ্যামনগরের কৈখালীতে এতিম ছাত্র ও শিক্ষকদের মাঝে ঈদের নতুন পোশাক বিতরণ
  • সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ১৩
  • শ্যামনগরের কাশিমাড়ীতে বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন
  • সাতক্ষীরায় ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত ১০৮, প্রতিরোধে চলছে বিভিন্ন প্রচারাভিযান
  • সাতক্ষীরায় কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে পশুর হাট
  • বাংলাদেশে সর্বপ্রথম সাতক্ষীরা জেলাকে ডেঙ্গুমুক্ত করতে চায়: জেলা প্রশাসক