বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

সাতক্ষীরায় কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে পশুর হাট

সাতক্ষরায় কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে জেলাসদরসহ সাতটি উপজেলায় গরু ও ছাগলের হাট জমে উঠেছে। এবার ভারতীয় গরু আমদানি বন্ধ থাকায় খামারি ও ব্যবসায়ীরা দারুণ খুশি। সীমান্ত এলাকা দিয়ে যেন কোনভাবেই ভারতীয় গরু দেশে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য বিজিবির পক্ষ থেকেও নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া খামারিরা এবার গরু মোটাতাজাকরণে ওষুধ প্রয়োগ থেকেও বিরত রয়েছেন বলে জানিয়েছে জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতর।

জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের পরিসংখ্যান তথ্যে জানা গেছে, জেলায় খামারি রয়েছে ১২ হাজার ৭৩৩ জন। এসব খামারিদের কাছে এ বছর কোরবানির জন্য প্রস্তুত রয়েছে ৫৬ হাজার ২৭৬টি গুরু-ছাগলসহ বিভিন্ন প্রজাতির পশু।

এর মধ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় রয়েছে ৮১৩০টি গরু ও ৩৩৪৮টি ছাগল, কলারোয়া উপজেলায় ৫২৮৫টি গরু ও ৫৩২২টি ছাগল, তালা উপজেলায় ৭১৬৩টি গরু ও ৪১৮৬টি ছাগল, আশাশুনি উপজেলায় ২৯৯৩টি গরু ও ২০৫২টি ছাগল, দেবহাটা উপজেলায় গরু ১১৫৫টি ও ১১৮৬টি ছাগল, কলিগঞ্জ উপজেলায় ২৮১১টি গরু ও ৩৮২৬টি ছাগল এবং শ্যামনগর উপজেলায় ৩০৩৬টি গরু ও ৫৭৪৩টি ছাগল রয়েছে। জেলাজুড়ে কোরবানিযোগ্য গরু প্রস্তুত রয়েছে ৩০ হাজার ৫৭৩টি ও ছাগল ২৫ হাজার ৭০৩টি।

এছাড়াও মৌসুমি গরু-ছাগল পালনকারীদের কাছেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কোরবানির পশু রয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে তারা এসব গরু বা ছাগল পালন করে থাকেন। ঈদের সময়ে তারা বিক্রি করে দেন।

এমনই এক গরু পালনকারী কলারোয়া উপজেরার ওফাপুর গ্রামের আমিউদ্দীন বলেন, আমার একটি গরুআছে। এখনও বিক্রি করিনি। আশা করছি, দেড় লাখ টাকায় গরুটি বিক্রি হবে। গরুটিকে কোনো ওষুধ খাওয়ানো হয়নি। ওষুধের মাধ্যমে গরু মোটাতাজা করলে ক্রেতারা আগ্রহ হারিয়ে ফেলে, দামও কম হয়।

ভারতীয় গরু আমদানি বন্ধ থাকায় আশার আলো দেখছেন গরু ব্যবসায়ীরা। পাটকেলঘাটা শাকদাহ এলাকার গরু ব্যবসায়ী আব্দুল খালেক বলেন, এ বছর ভারতীয় গরু আমদানি বন্ধ রয়েছে। এতে খামারি ও ব্যবসায়ীরা ভালো দামে গরু বিক্রি করতে পারবেন।

ভারতীয় গরু দেশে প্রবেশের বিষয়ে সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবির অধিনায়ক মোহাম্মদ গোলাম মহিউদ্দিন খন্দকার বলেন, সাতক্ষীরার সীমান্ত এলাকজুড়ে নজরদারি জোরদার করা হয়েছে। অবৈধভাবে যেন একটি গরুও দেশে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য চেকপয়েন্ট বসিয়ে কাজ করে যাচ্ছে বিজিবি।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম বলেন, জেলায় ৫৬ হাজারেরও অধিক কোরবানিযোগ্য গরু ও ছাগল প্রস্তুত রয়েছে। ঈদের শেষ মুহূর্তের হাটগুলো জমে উঠতে শুরু করেছে। প্রত্যেকটি পশুর হাটে মেডিকেল টিম কাজ করছে। অসুস্থ ও ওষুধ ব্যবহার করা হয়েছে মোটাতাজা করা হয়েছে এমন সন্দেহ হলে পশুর হাটে থাকা মেডিকেল টিমকে অবহিত করতে বলা হয়েছে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

‘পুলিশের পাশাপাশি জনগণের সচেতনতা-ই পারে শান্তি-শৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে’

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) বলেছেন- ‘মাদক,বিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় প্রয়াত এমএলএ মমতাজ আহমদের স্ত্রীর ইন্তেকাল

কলারোয়ায় প্রয়াত এমএলএ, এমসিএ, এমপিএ মমতাজ আহমেদ প্রথমা স্ত্রী ওবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় গাঁজাসহ যুবক আটক

কলারোয়ায় ১’শ গ্রাম গাঁজাসহ এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। বঙ্গবন্ধুরবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের সাথে জেলা ছাত্র ফেডারেশনের সৌজন্য সাক্ষাৎ
  • সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ২২
  • কলারোয়ার কেঁড়াগাছিতে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ
  • কলারোয়ার কাজীরহাটে প্রীতি ফুটবল ম্যাচে স্বাগতিকদের জয়
  • দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকায় কলারোয়া প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সরদার জিল্লুর
  • সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৬১ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত
  • সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত ২৩৯ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত
  • কলারোয়ায় মারামারি মামলায় যুবক গ্রেফতার
  • কলারোয়ায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
  • সাতক্ষীরায় মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ২৮
  • কলারোয়ায় পরিবহনের ধাক্কায় গ্রামপুলিশ আহত
  • কলারোয়ার বালিয়াডাঙ্গায় মাত্র ১কি.মি. রাস্তা সংষ্কারের অভাবে দূর্ভোগ চরমে