শনিবার, জুলাই ১১, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

করোনা আর আম্পানের তান্ডবে জামাইষষ্ঠীর দফারফা!

আজ বৃহস্পতিবার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আর একটা উৎসব জামাইষষ্ঠী। কিন্ত বুধবারেও তা নিয়ে কোথাও কোনও উত্তাপ ছিলোনা। জামাইদের ছুটির আবেদন নেই। শ্বশুরদের ব্যাগ হাতে ছোটাছুটি নেই। হোটেল, রেস্তোরাঁর স্পেশাল ডিশ নেই। তার মধ্যে শুরু হয়েছে সকাল থেকে বিষ্টি।

সবকিছু মিলিয়ে লকডাউন ও আম্পানে কেড়ে নিয়েছে অনেক কিছু।

মেয়ে-জামাইয়ের মঙ্গল কামনাতেই জ্যৈষ্ঠের শুক্লপক্ষের ষষ্ঠী তিথিতে শাশুড়িরা যে বিশেষ ষষ্ঠীর পুজো করেন সেটাই জামাইষষ্ঠী নামে পরিচিত। আজও বেশ কিছু বনেদি পরিবারে অতীতের রীতি মেনে হয় জামাইষষ্ঠী। তবে, এই বছর যারা নতুন বিয়ে করেছে প্রথম ষষ্ঠী করতে শশুর বাড়ি যাবে জামাই, শাশুড়ী অপেক্ষায় আছে মেয়ে জামাই আসবে সেটাও নায় এবার অনেকের কপালে। দিশেহারা হয়ে পড়েছে নতুন জামাইরা।

তবে শহরের জামাইষষ্ঠী একটু অন্যরকম। হোটেল বা দামী রেস্তোরাঁ থেকে খাবার আনিয়ে নয়, সেখানে প্রাধান্য পায় বাড়িতে তৈরি হরেক রকমের পদ।

সাদাভাত, শুক্তো, পাঁচ রকমের ভাজা, শাক, মুগের ডাল, সরষে পাবদা, পোলাও, পাঁঠার ঝোল, কই মাছ, ইলিশ সরষে হরগৌরী। শশুরবাড়িতে পৌঁছলে জামাইকে দেওয়া হত ধুতি, পাঞ্জাবি। তার পরে শুরু হত জামাইষষ্ঠীর মূল অনুষ্ঠান। একটা ঝুড়িতে পান, নানা ধরনের ফল আর উপহার জামাইকে দেওয়া হত।

কিন্তু এই বছর লকডাউন অনেক কিছুই কেড়ে নিয়েছে। পয়লা বৈশাখ পালন হয়েছে নমো নমো করে। অক্ষয় তৃতীয়াও তাই। ঘরেই সারতে হয়েছে ঈদের আনন্দ। চরম মন্দার কবলে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। ফল-মিষ্টি-সবজি-মাছ ও হাতপাখা গড়ার কারিগররা। করোনার ছোঁবলে সরকারী লকডাউনের যাতাকলে এবার জামাই ষষ্ঠীর বাজার মন্দা, ফলে জৌলুশ হারিয়েছে জামাইষষ্ঠীর।

জামাইষষ্ঠীতেও জামাইয়ের পাতে আম, কাঁঠাল, লিচুর কদর চিরকাল। লকডাউনের জেরে বিক্রিবাটা তলানিতে ঠেকেছিল আম্পানের কারনে। তবে ঈদ ও জামাইষষ্ঠীকে ঘিরে আশার আলো দেখতে শুরু করেছিলেন ফল বিক্রেতারা। কিন্তু তার আগেই সুপার সাইক্লোন আম্পান ফল বিক্রেতাদের সেই আশা ব্যহত করেছে। তাঁদের বক্তব্য, এমনিতেই মানুষের রোজগার বন্ধ। তার মধ্যে প্রাকৃতিক বিপর্যয় হওয়ায় কোনও উৎসবই আর সে ভাবে হবে না। মার্চ মাসে লকডাউন শুরু হওয়ার পর সমস্ত দোকানপাটই বন্ধ হয়ে যায়। মাঝে ফলের দোকান ছাড়ের আওতায় এলেও সে ভাবে ক্রেতাদের দেখা মেলেনি। ফলে বেশ কিছুদিন ধরে দোকান খোলা থাকলেও আয় একেবারে তলানিতে ঠেকেছিল ফল ব্যবসায়ীদের। তবে জামাইষষ্ঠীতে ফলের চাহিদা ভালো থাকে।

তাই লকডাউনের মধ্যেও পরপর ঈদ ও জামাইষষ্ঠীতে বেশ খানিকটা ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার আশা করেছিলেন ফল বিক্রেতারা। তাতেও জল ঢেলে দিল এই ঘূর্ণিঝড়।

ঘূর্ণিঝড় আম্পান আর প্রবল বর্ষণে এ বার সাতক্ষীরার কলারোয়ায় সহ বিভিন্ন এলাকার কয়েক হাজার আম, লিছু কাঁঠাল চাষিদের মাথায় হাত। এর আগে অকাল বৃষ্টিতে বোরো ধান, তিল আর আলু চাষের ক্ষতি হয়েছে। আম্পান ও বৃষ্টির জমা জলে সাতক্ষীরার উপকূলীয় এলাকায় শ্যামনগর, আশাশুনি, কলিগঞ্জে মাছ ঘের তলিয়ে নষ্ট হয়েছে নষ্ট হয়েছে বসত ঘরবাড়ি সব কিছু হারিয়ে এখন সর্বস্বান্ত হয়ে বসে আছে এই এলাকার মানুষ।

একই রকম সংবাদ সমূহ

১১জুলাই: যবিপ্রবির ল্যাবে ৬০ জনের করোনা পজিটিভ, সাতক্ষীরার ১৫ জন

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে ১১ জুলাই,বিস্তারিত পড়ুন

অসুস্থ সাংবাদিক ইয়ারবের সুস্থতা কামনা কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের

সড়ক দূর্ঘটনায় আহত দৈনিক মানবজমিনের সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক ইয়ারববিস্তারিত পড়ুন

সাহারা খাতুন এমপি’র মৃত্যুতে কলারোয়া আ.লীগ নেতৃবৃন্দের শোক

আওয়ামীলীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ্যাড. সাহারা খাতুন এমপি’র মৃত্যুতেবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরায় আরো ৩১ জন করোনা শনাক্ত, এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত ৩২৪ জন
  • কলারোয়ায় যাতায়াতের পথ বন্ধ রেখে বিল্ডিং নির্মাণের অভিযোগ
  • একই পরিবারের ৪জনসহ কলারোয়ায় আরো ৭জনের করোনা শনাক্ত
  • কলারোয়ার বালিয়াডাঙ্গায় ডাচ্ বাংলা ব্যাংক এজেন্ট কেন্দ্রের উদ্বোধন
  • সাতক্ষীরা জেলায় আরো দুই চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশসহ ২৪ জন করোনা শনাক্ত
  • এইচএসসি-২০২০ নিয়ে পরীক্ষার্থীদের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা
  • কলারোয়ার চন্দনপুরে নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
  • কলারোয়ায় করোনা শনাক্ত আরো ৪ ব্যক্তি ।। বর্তমানে আক্রান্ত ২৪, মুক্ত’র পথে কয়েকজন
  • মাদক ও চোরাচালানের নিরাপদ রুট কলারোয়া! দুই সপ্তাহে বিপুল পরিমাণ মাদক, স্বর্ণ, রুপা উদ্ধার
  • কলারোয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী শিশু তামান্নার মৃত্যু বার্ষিকী
  • কলারোয়া পৌর এলাকায় স্বল্পবৃষ্টিতে সড়কে জলাবদ্ধতা: দেখবে কে?
  • কলারোয়ায় সদ্যপ্রয়াত হামিদ চেয়ারম্যানের স্ত্রীসহ আরো ৫ জনের করোনা শনাক্ত ।। বর্তমানে আক্রান্ত ২০