রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

করোনা: থমকে গেছে কলারোয়া উপজেলা, সবখানে ফাঁকা

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর হঠাৎ করেই সব কিছু বদলে গেছে। কলারোয়া উপজেলা অনেকটা থমকে গেছে। জনকোলাহল এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে। চারদিকে মানুষের চোখে মুখে সতর্কতার ছাপ। প্রভাব পড়েছে বাজারে, খেলার মাঠেও। নিত্যপণ্যের বাজারেও অজানা শংকার ছায়া।

ইতোমধ্যে স্থগিত হয়েছে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান। করোন মোকাবেলায় ঝাপিয়ে পড়েছে কলারোয়া উপজেলা প্রশাসন ও কলারোয়া থানা পুলিশ। বন্ধ করার নির্দেশনা দিয়েছেন উপজেলার সাপ্তাহিক সব হাট, বাজারের দোকানপাট, গণজামায়ত, ওয়াজ মাহফিল, নামযজ্ঞসহ সকল প্রকার অনুষ্ঠান।

এদিকে, নিজের পরিবারের সুরক্ষায় মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ কিনতে ক্রেতারা ভিড় করছেন দোকানে। কেউ পাচ্ছেন, কেউ পাচ্ছেন না। আভ্যন্তরিণ মহেন্দ্র, থ্রিহুইলার চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বাধ্য হয়ে যারা যাতায়াত করছেন তাদের অনেকের মুখে মাস্ক। অন্যসকল সরকারি-বেসরকরি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও সীমিত আকারে খোলা ব্যাংকগুলোতেও কমেছে ভিড়। হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসা নিতে আসা আসা রোগীদের সংখ্যাও কমেছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রবাদি কিনতে বাজারে আসা ক্রেতারাও চলছেন সতর্ক হয়ে। বন্ধ হয়ে গেছে সকল চায়ের দোকানসহ অন্যান্য প্রায় সকল দোকানপাট। সবমিলিয়ে সকলে অজানা শংকায় রয়েছেন সতর্ক অবস্থানে।
এরপরেও গ্রামাঞ্চলের অনেকে এখনো অসতর্ক ও অরক্ষিত অবস্থাতেও ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে।

এদিকে, কলারোয়া উপজেলা পরিষদ মোড়, বাসস্ট্যান্ড, চৌরাস্তা, পশুহাটসহ প্রায় সকল ব্যস্ততম এলাকায় অন্য দিনের চেয়ে কম জনসমাগম দেখা গেছে। পথে চলাচল করা সাধারণ মানুষের মাঝে সতর্কতার চিত্র।
অনেকের মুখে ছিল করোনার আলোচনা। পথচারীদের অনেককে মুখে মাস্ক ব্যবহার করতে দেখা যায়।

অপরদিকে, সবকিছু বন্ধ হয়ে যাওয়াতে বিপাকে পড়েছেন কলারোয়া উপজেলার খেঁটে খাওয়া মানুষ।
ভ্যান চালক সাইফুল জানান- করোনা ভাইরাস নিয়ে সব কিছু বন্ধ হয়ে গেছে, বিপদে পড়েছি আমরা, সারাদিন ভ্যান চালিয়ে যে কয় টাকা উপার্জন করি সমিতিকে কি দেব আর আমি কি খাবো।

কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আক্তার হোসেন, থানার ওসি শেখ মুনীর-উল-গীয়াসের প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা কলারোয়া বাজারের নিত্যপ্রয়োজনীয় মূল্যের তদারকিসহ মানুষকে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করছেন। বসে নেই নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ও জনপ্রতিনিধিরাও। মাইকিংসহ মাস্ক, সাবান, সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করে চলেছেন তারা।

২৫ মার্চ বুধবার সকালে উপজেলা প্রশাসন কলারোয়া থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে সমস্ত বাজার পায়ে হেঁটে মানুষের সাথে ঔষধ-নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান ছাড়া অন্য দোকানপাট ও চায়ের দোকান বন্ধ করার নির্দেশ দেন। বাজারে চলাচলকারী মানুষকে তারা বলেন- আপনারা সবাই সচেতন থাকবেন, নিয়মিত সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন। আপনারা সবাই ভালো থাকলে আমরা সবাই ভালো থাকবো।
অনুরূপ কার্যক্রম চালিয়েছেন কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টুও।

এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও মানব সেবা সংগঠনের কর্মীরা লিফলেট, মাক্স, ও মাইকিং সহ বিভিন্ন সচেতন মূলক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করছেন।

একই রকম সংবাদ সমূহ

করোনা মোকাবেলা ও কৃত্রিম সংকট

আজ সারাবিশ্বে বড় আতংকের নাম করোনা ভাইরাস। চায়ের দোকান থেকেবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়া পৌরসদরে মজনু চৌধুরীর উদ্যোগে জীবাণুনাশক স্প্রে করলেন লাল্টু ও সাহাজাদা

কলারোয়া পৌর সদরের বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশক পানি স্প্রে সহকারে ছিটানোবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরা জেলায় ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১০৬ জন হোম-কোয়ারেন্টাইনে

সাতক্ষীরায় গত ২৪ঘন্টায় বিদেশ ফেরত আরো নতুন ১০৬জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনেরবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ার শংকরপুরে যুবকদের জীবাণুনাশক স্প্রে ও প্রচারণা
  • ‘করোনা: ২৪ ঘন্টার ডাক্তার আমাদের সুব্রত ঘোষ’
  • করোনা: সাতক্ষীরায় নিন্ম আয়ের মানুষদের বিভিন্ন সামগ্রী দিলো ওয়ার্কার্স পার্টি
  • গুজবের দেশ বাংলাদেশ! গুজব রটনার মাধ্যম ফেসবুুক!
  • গুজব একটি সামাজিক ভাইরাস, এটি প্রতিরোধে আসুন সচেতন হই
  • করোনা প্রতিরোধে ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রতি কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের খোলা চিঠি
  • কলারোয়া গরুহাট, বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা তদারকিতে এসিল্যান্ড আক্তর হোসেন
  • করোনা: জীবাণুনাশক ছিটালো কলারোয়ার মুরারীকাটির কয়েকজন যুবক
  • করোনা: কলারোয়ার জয়নগরে জীবানুনাশক ছিটালেন ইউপি সদস্য জয়দেব সাহা
  • কলারোয়ায় রাস্তায় জীবাণুনাশক স্প্রে করলো জেলা ছাত্রদল
  • করোনা : কলারোয়ার কেঁড়াগাছি প্রিমিয়ার ছাত্র সংঘের উদ্যোগে স্যানিটাইজার বিতরণ
  • চাপনিতে (গোপনে) এনজিও’র কিস্তি আদায়! তবে কমেছে