মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

কলারোয়ার সেই ‘এবি পার্ক’ থেকে হাতেনাতে পতিতা-খরিদ্দারসহ ৯জন আটক

অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগে কলারোয়ার যুগিখালী এলাকার ‘এবি পার্ক’ থেকে ভ্রাম্যমান পতিতা ও খরিদ্দার এবং পার্কের ম্যানেজারসহ ৯জনকে আটক করেছে পুলিশ।

রবিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে থানা পুলিশ। আটকদের এদিন সাতক্ষীরার বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার ওসি শেখ মুনীর-উল-গীয়াসের নির্দেশে তদন্ত ওসি মোহা. রাজিব হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল শনিবার (২৩নভেম্বর) বিকালে অভিযান চালিয়ে উপজেলার যুগিখালীর জাহাজমারি বিল এলাকার ‘এবি পার্ক’ থেকে হাতেনাতে তাদের আটক করে।

এই ‘এবি পার্ক’টি স্থানীয়দের কাছে ‘জাহাজমারি পার্ক’ নামেও পরিচিত।

থানা সূত্রে জানা যায়- অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় ৩জন ভ্রাম্যমান পতিতা ও ৪জন খরিদ্দারকে হাতে নাতে ধরে ফেলে পুলিশ সদস্যরা।

এছাড়াও ওই পার্কের ম্যানেজার উপজেলার কয়লা ইউনিয়নের আলাইপুর গ্রামের মৃত ওমর আলীর পুত্র সাহেব আলী ওরফে শহর আলী (৫০) ও পরিচ্চন্নতাকর্মী কাম বাবুর্চি খুলনার পাইকগাছা থানার শাহাপাড়া দেবদুয়া গ্রামের মৃত ফজর আলীর স্ত্রী কুলসুম বেগম (৫০)কে অপকর্মে সহযোগিতার অভিযোগে আটক করা হয়।

আটককৃত ভ্রাম্যামান পতিতা ও খরিদ্দাররা হলো- সাতক্ষীরা সদর থানার এল্লারচর গ্রামের মৃত ইমান আলীর কন্যা আঞ্জুয়ারা বেগম (৩৫), ঝিকরগাছার বাকড়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তির বাসাবাড়ির ভাড়াটিয়া একই থানার উজ্জলপুর গ্রামের মৃত নাজের মোড়লের কন্যা রেবেকা (৩৫), শার্শা থানার লাউতাড়া গ্রামের গাফফার আলীর কন্যা মোছা.মাহফুজা (২৫), যশোরের ঝিকরগাছা থানার বাকড়া আলীপুরের জামশেদ আলীর পুত্র রফিকুল ইসলাম (২৮), কেশবপুর থানার গোপসানা গ্রামের মান্নান মোড়লের পুত্র হাবিবুর রহমান (৩০) ও একই গ্রামের সুভাষ বিশ্বাসের পুত্র সূর্য বিশ্বাস (২৫) এবং মনিরামপুর থানার হায়াতপুরের আনিছুর রহমানের পুত্র মেহেদি হাসান (২৩)।

সেসময় ‘এবি পার্কের’ মালিক যুগিখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল বাশার পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

তবে ধৃত ৯জন আসামি ও পার্কের মালিক যুগিখালী গ্রামের মৃত এবাদ আলী ফকিরের পুত্র আবুল বাশার ফকিরের নাম উল্লেখসহ আরো ৪/৫জনকে অজ্ঞাত আসামি করে কলারোয়া থানায় একটি মামলা (নং-২৬, তাং-২৩/১১/১৯ইং) হয়েছে।’

কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর-উল-গীয়াস কলারোয়া নিউজ’কে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এব্যাপারে অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রাজিব হোসেন কলারোয়া নিউজকে জানান- ‘দীর্ঘদিন যাবত ওই পার্কটিতে অবৈধ ও অসামাজিক কর্মকান্ডসহ জুয়ার আসর বসতো। পার্কের ভিতরে ও বাইরে রীতিমতো পাহারা দিয়ে একাজ চালাতো। তাই গোপন সংবাদ পেয়ে কৌশলে ওই পার্কে অভিযান পরিচালনা করে এর সত্যতা পেয়েছি। অসামাজিক কর্মকান্ডের দায়ে ৪জন নারীসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি।’

কলারোয়া নিউজকে তিনি আরো জানান- ‘ওই পার্কের মধ্যে ছোট ছোট অনেক গুলো অস্থায়ী ঘর আছে, যার মধ্যে ঘন্টায় ১হাজার টাকা চুক্তিতে পার্কের মধ্যে অবস্থান করা ভাসমান পতিতাদের খদ্দের এর কাছে ভাড়া দেয়া হয়। সেসময় ওই ঘরের বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেয়া হয়। ঘন্টা পুরো হলে তালা খুলে দেয় পার্ক কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও পার্কের মধ্যে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় কৃত্রিমভাবে আড়াল করে রাখা আস্তানা করা আছে, সেখানে অবস্থান করতে হলে ৫’শত টাকা ভাড়া দিতে হয় পার্কে আগন্তুক স্কুল কলেজে পড়ুয়া প্রেমিক-প্রেমিকাদের। যেখানে সব ধরণের অপকর্ম চলে। দূর থেকে দেখে বোঝার কোন উপায় নেই যে ওই আস্তানার মধ্যে কোন মানুষ আছে।’

স্থানীয়রা কলারোয়া নিউজকে জানিয়েছেন- ‘ভ্রমন পিপাসু ও বিনোদনের জন্য কলারোয়া উপজেলা সদর থেকে ১৪কিলোমিটার দূরে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের ফসলি মাঠের মধ্যে ২০১৪ সালে ‘এবি পার্ক’ নামে এই পার্কটি তৈরী করা হলেও মূলত অনৈতিক কর্মকান্ড চলে আসছিলো প্রথম থেকেই। দেহব্যবসার পাশাপাশি প্রায়-ই জুয়ার আসরের অভিযোগ ছিলো সবার মুখে। পার্কটি উদ্বোধনের পর থেকেই নানান নেতিবাচক কারণে এবি পার্ক বা জাহাজমারি পার্কের নাম শুনলেই অনেকের কাছে নাক-শিটকানোর অবস্থা পরিলক্ষিত হয়। স্বাভাবিকভাবেই স্কুল-কলেজ পড়ুয়া কোমলমতি ছেলে-মেয়েরা নষ্ট হয়ে যাওয়ার অভিযোগে পার্কটি বন্ধ করা ও নজরদারিতে রাখার দাবি জানিয়ে আসছিলো এলাকাবাসী। এর আগেও একাধিকবার পার্কে জুয়ার আসরে অভিযান চালানোর খবর পাওয়া গিয়েছে। ’

তাদের অভিযোগ- ‘পার্কে অবৈধ কাজের সাথে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিদের ইন্ধন ছিলো। থানা সদর থেকে দূরে হওয়ার কারণে পুলিশ কিংবা অন্যান্য প্রশাসন সেখানে গিয়ে হাতেনাতে কাউকে ধরতে পারতো না। এমনকি ফসলি মাঠের মধ্যে হওয়ায় ওই পার্কে যাওয়ার একমাত্র রাস্তার মুখে পার্ক সংশ্লিষ্টদের নজরদারির কারণে কোন অভিযান বাস্তবিক অর্থে আলোর মুখ দেখেনি। ফলে স্থানীয় সাধারণ মানুষের নেতিবাচক মনোভাব অঙ্কুরেই বিনষ্ট হয়েছে।’

পুলিশসহ প্রশাসনের ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি পার্ক সংশ্লিষ্ট ও এ অনৈতিক কাজে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারপূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। পাশাপাশি এলাকার সার্বিক পরিবেশ সমুন্নত রাখতে পার্কটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়ার দাবিও জানানো হয়।’

 

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ায় মহিলাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক ॥ ইয়াবা উদ্ধার

কলারোয়ায় মহিলাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় উদ্ধারবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় জাপা নেতার মায়ের ইন্তেকাল ।। দাফন সম্পন্ন

কলারোয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক মশিউর রহমান ও সাংবাদিক আতাউরবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় ‘বেগম রোকেয়া দিবস ও জয়িতাদের সংবর্ধনা’

কলারোয়ায় ‘বেগম রোকেয়া দিবস ও জয়িতাদের সংবর্ধনা’ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।বিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরা জজ কোর্টের এপিপি এড.আশরাফুল আলমের শাশুড়ীর মৃত্যু
  • কলারোয়ার লাঙ্গলঝাড়া বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন
  • কলারোয়ার কাজীরহাটে ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে শার্শার বাইকোলা
  • কলারোয়ার জয়নগর ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বে জয়দেব সাহা
  • কলারোয়ায় হত-দারিদ্রদের মাঝে চাল বিতরণ
  • কলারোয়ায় অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্বল বিতরণ
  • কলরোয়ায় আন্ত:সীমান্ত মানব পাচার প্রতিরোধে আলোচনা সভা
  • কলারোয়ায় বোয়ালিয়ায় প্রস্তাবিত দারুস সালাম মসজিদ কমপ্লেক্স কমিটির আলোচনা সভা
  • সাতক্ষীরা বাকশিস নির্বাচনে সভাপতি এনামুল, সম্পাদক মনিরুল
  • সাতক্ষীরায় পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২১
  • কলারোয়ার কেঁড়াগাছির ১৬দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন সাতক্ষীরার ভাড়ুখালী
  • কলারোয়া ইজিবাইক মালিক-শ্রমিক সমিতি উদ্বোধন ॥ কলারোয়া-কেঁড়াগাছি রুটের আনুষ্ঠানিক পথচলা