সোমবার, জানুয়ারি ২০, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

কেশবপুরে অবৈধভাবে সেচ প্রকল্প অনুমোদন দেয়ার অভিযোগ

যশোরের কেশবপুরে বিএডিসি‘র সহকারি প্রকৌশলীর (নির্মাণ) বিরুদ্ধে ভূ-গর্ভস্থ পানি উত্তোলন নীতিমালা উপেক্ষা করে একটি অনুমোদিত সেচ প্রকল্পের অভ্যন্তরে আরও একটি অবৈধ সেচ প্রকল্প অনুমোদন দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে যশোর রিজিয়নের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতির কাছে পৃথক অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে মির্জানগর বিলের বোরো আবাদ।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে উপজেলার চাদড়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে ও কেশবপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান মির্জানগর বিলে বিএডিসি ও উপজেলা সেচ কমিটির অনুমোদন নিয়ে একটি অগভীর নলকুপ স্থাপন করেন। এরপর থেকে তিনি বিল সংলগ্ন কৃষকদের পাট ও বোরো ধান আবাদে সেচ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। ইতোমধ্যে সুষ্ঠুভাবে পানি সরবরাহের লক্ষ্যে তিনি প্রায় ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে সেচ প্রকল্প এলাকায় ৬’শ ফুট পাইপ লাইন স্থাপন কাজ সম্পন্ন করেছেন। সম্প্রতি একই গ্রামের মৃত আবু কালাম সরদারের ছেলে ফারুক হোসেন বিএডিসির সহকারি প্রকৌশলীকে (নির্মাণ) অনৈতিক সুবিধা দিয়ে সেচ নীতিমালা লঙ্ঘন করে প্রায় সাড়ে ৩’শ ফুটের মাথায় আরও একটি সেচ প্রকল্প স্থাপনের অনুমোদন নেয়। অনুমোদন পেয়ে ফারুক হোসেন তার সেচ প্রকল্প বাস্তাবয়নের লক্ষ্যে আব্দুল মান্নানের সেচ প্রকল্প এলাকার ভেতর দিয়ে বিএডিসির সেচ প্রকল্পের ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করেন। বিষয়টি সাংঘষিক হওয়ায় আব্দুল মান্নান গত ২৬ মে বিএডিসির সহকারি প্রকৌশলীর কাছে অভিযোগ করেন। কিন্তু তিনি বিভিন্ন অযুহাতে বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সময় ক্ষেপণ করতে থাকেন। এমতাবস্থায় আব্দুল মান্নানের সেচ প্রকল্পের ভেতর দিয়ে যদি আরও একটি সেচ প্রকল্প স্থাপন করা হয় তাহলে তিনি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবেন বলেই অভিযোগপত্রটি দাখিল করেছেন।

আব্দুল মান্নান অভিযোগ করে বলেন, ভূ-গর্ভস্থ পানি উত্তোলন নীতিমালা অনুযায়ী ৭’শ ফুটের ভেতর কেউ সেচ অনুমোদন পাবে না। অথচ বিএডিসি এ আইন লঙ্ঘন করে ফারুক হোসেনকে সেচ প্রত্যয়ন দিয়েছে। তিনি ফারুক হোসেনের অবৈধভাবে নেয়া সেচ প্রত্যয়ন বাতিলের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে বিএডিসির সহকারি প্রকৌশলী (নির্মাণ) জহিরুল ইসলামের ০১৭২৭৬৬৭১৬৭ নং মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানূর রহমান বলেন, সেচ নীতিমালার বাইরে কেউ সংযোগ পাবে না। বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্যে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মহাদেব চন্দ্র সানা বলেন, গত ২৯ অক্টোবর তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশিত অভিযোগপত্রটি পেয়েছেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

আধুনিকতার ছোয়ায় সাতক্ষীরায় মাদুর শিল্প বিলুপ্তির পথে

সাতক্ষীরায় এক সময় গ্রামাঞ্চল ও শহরের মানুষদের বসার অন্যতম মাধ্যমবিস্তারিত পড়ুন

কেশবপুরে সাগরদাঁড়িতে ২২জানুয়ারি থেকে ৭ দিন ব্যাপী মধুমেলা

যশোরের কেশবপুরে সাগরদাঁড়িতে ২২ জানুয়ারি বুধবার থেকে শুরু হবে ৭বিস্তারিত পড়ুন

যশোরে ১১ কেজি ওজনের ৯৪ পিচ সোনার বারসহ ৩ জন আটক

যশোরে ১১ কেজি ওজনের ৯৪ পিচ সোনার বারসহ ৩ জনবিস্তারিত পড়ুন

  • বেনাপোলের বারপোতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে স্বাগতিকরা
  • শার্শায় শিক্ষক সুপারভাইজারদের প্রশিক্ষন কর্মশালার উদ্বোধন
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে মায়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা!
  • ঝিকরগাছা থেকে চুরি হওয়া প্রাইভেটকার নড়াইলে উদ্ধার, আটক ৩
  • কেশবপুর ও মণিরামপুরের ২৭ বিলে জলাবদ্ধতা দূরিকরণে মতবিনিময় সভা
  • মনিরামপুরে নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন
  • বেনাপোলে দালালের খপ্পরে সিল জালিয়াতির শিকার পাসপোর্ট যাত্রী; অত:পর আটক
  • কেশবপুরে মাসব্যাপী প্রমীলা হকি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন
  • দালাল ছাড়া দ্রুত সেবা মেলে না যশোর বিআরটিএ অফিসে
  • মনিরামপুরের হরিহরনগর প্রাইমারি স্কুলে ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ
  • কেশবপুর পাইলট হাইস্কুলে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা
  • কেশবপুরে এমপি ইসমাত আরার সুস্থতা কামনায় আ.লীগের দোয়ানুষ্ঠান