শুক্রবার, মে ২৯, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

সাতক্ষীরা

খাটালের অনুমোদন নেই তবু আসছে ভারতীয় গরু; সাথে মাদক!

সাতক্ষীরায় কলোবাজারীদের হাতে বন্দি প্রশাসন, সীমান্তের অধিবাসিরা ভীত-সন্ত্রস্ত,মুখ খুলতে নারাজ, খাটাল বা বিটের অনুমোদন না থাকা সত্বেও বাংলাদেশী গরু রাখালরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ভারত থেকে গরু আনছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন নামে গরু প্রতি নেয়া হচ্ছে ৭হাজার ৮০০টাকা। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের গোচরে আনার পরও অজ্ঞাত কারনে তা থামছে না।

সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরা, মোট সীমান্ত ২৩৮ কিলোমিটারের মধ্যে ১৩৮ কিলোমিটার স্থল সীমান্ত। এই দীর্ঘ সীমান্তে ৫টি উপজেলা, থানা ও ২টি বিজিবি কোম্পানী দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই অঞ্চলের বিশেষ কিছু চোরাকারবারী সেন্টিগেটর মাধ্যমে অবৈধ পথে ভারত হতে আসে মাদক,কাপড়,গরু, মটর পার্স, পল্ট্রি মুরগীর বাচ্চা, মাছের রেনু সহ বিভিন্ন প্রকার সেফের মালামাল। তবে এ সকল মালামাল আনা হয় গরু আনার আড়ালে বাংলাদেশী গরু রাখাল দিয়ে।

এই দীর্ঘ সীমান্তে ভারত হতে গরু আনার জন্য কোন খাটালের অনুমোদন নেই, তবে কলারোয়া উপজেলায় ৩টা, সাতক্ষীরায় ১টা, দেবহাটায় ১টা এবং কালীগঞ্জ উপজেলায় ১টা খাটালের আগামী ১৫ই জুলাই পর্যন্ত অস্থায়ী অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

দেবহাটা উপজেলায় কোমরপুর ছাড়া আর কোথাও অনুমতি না থাকলেও টাউনশ্রীপুর দিয়ে ছাঈদ গাজীর সেন্টিগেটের মাধ্যমে প্রায় প্রতিদিনই বাংলাদেশী গরু রাখাল দিয়ে নদী সাঁতার দিয়ে ভারত থেকে গরু ও সাথে মাদকসহ অন্যান্ন অবৈধ মালামাল আনা হচ্ছে। আর হাটবার না থাকলেও পারুলিয়া গরুর হাটের পাস দিয়ে গরুগুলি দেশের অভ্যান্তরে চালান করা হচ্ছে। প্রশাসনসহ বিভিন্ন নামে গরু প্রতি নেয়া হচ্ছে ৭হাজার ৮০০টাকা। আর একারণেই হয়তো স্থানীয় প্রশাসন এই সেন্টিগেটের হাতে জিম্মি। সীমান্তের ছাত্র ও যুবসমাজ হয়ে পড়ছে মাদকাসক্ত। তারপরও সীমান্তবর্তী জনগন এই সেন্টিগেটের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে ভীত-সন্ত্রস্ত। এভাবেই কয়েক বছরে ভুমিহীন সাঈদ এখন গাড়ী এবং বিলাসবহুল বাড়ির মালিক।

দেবহাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, এসকল বিষয় আমার জানা নেই। টাউনশ্রীপুরে বিজিবি আছে এটা তারাই বলতে পারবে।

এ বিষয়ে নীলডুমুর ১৭ ব্যাটালীয়ানের অধিনায়ক ০১৭৬৯৬০৪১৩০ নং মোবাইল ফোনে জানান কোমরপুরের বাহিরে যদি কোন এলাকা দিয়ে গরু আসে তবে তা অবৈধ, তবে প্রায় প্রতিদিনই বাংলাদেশী গরু রাখাল দিয়ে নদী সাঁতার দিয়ে ভারত থেকে গরু ও সাথে মাদকসহ অন্যান্ন অবৈধ মালামাল আনা হচ্ছে টাউনশ্রীপুরের এলাকাবাসি বক্তব্য হলেও আমাদেও এবিষয়ে জানা নেই। আর আমরা গরুসহ অবৈধ মালামাল ধরার জন্য ব্যস্ত আছি এবং তার ব্যবস্থা নিব।

এলাকবাসির অভিযোগ, এসব অপকর্ম করে পার পেয়ে যাচ্ছে সাঈদ। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

একই রকম সংবাদ সমূহ

গাছ বিক্রিকে কেন্দ্র করে কলারোয়ার ধানদিয়া মিশনে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৪

কলারোয়ার জয়নগর ইউনিয়নের ধানদিয়া মিশনে গাছ বিক্রিকে কেন্দ্র করে দুইবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ বিদ্যুতহীনতার রেশ এখনো কাটেনি, কাজ চলছে জোরেশোরে

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তান্ডবের রেশ কলারোয়ায় এখনো কাটেনি। বিশেষ করে উপজেলারবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরায় আরো ৪ জন করোনা শনাক্ত, এ পর্যন্ত ৪১জন, সুস্থ ৩

গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় আরো ৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।বিস্তারিত পড়ুন

  • করোনা আর আম্পানের তান্ডবে জামাইষষ্ঠীর দফারফা!
  • কলারোয়ায় মাছে ঘেরে বিষ দিয়ে ৪৪ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন, ঘের মালিক দিশেহারা
  • কলারোয়ায় মা ছেলে করোনায় আক্রন্ত, মোট আক্রান্ত ৬
  • কলারোয়ায় পুত্রের হাতে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে পিতার মৃত্যু
  • ৪জন করোনা শনাক্ত: কলারোয়ার চন্দনপুর ইউনিয়ন লকডাউনের অনুরোধে চিঠি
  • কলারোয়ার প্রাক্তন আনসার ভিডিপি সদস্য আবুল কাশেম আর নেই
  • আনিছ স্যারের মৃত্যুতে কলারোয়া শিক্ষক সমিতির শোক
  • দূরত্ব বজায় রেখে কলারোয়া থানা জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত
  • করোনামুক্তি ও জাতির শান্তি কামনায় কলারোয়ায় ঈদের জামাত
  • কলারোয়ায় এবার পল্লী চিকিৎসকের করোনা শনাক্ত, সেও চন্দনপুর ইউনিয়নের
  • কলারোয়া পাইলট হাইস্কুলের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আনিছ স্যার আর নেই
  • কলারোয়ায় ঈদ উপহার নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে ছাত্রলীগ নেতা