শুক্রবার, জুন ৫, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

প্রস্তুত ১৩৭টি আশ্রয় কেন্দ্র

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’ : ৭নং বিপদ সংকেত, সাতক্ষীরায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি প্রশাসনের

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’ মোকাবেলায় সাতক্ষীরা জেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি সর্বোচ্চ সতর্কতা ও প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। বৃহষ্পতিবার (২মে) দুপুরে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৪নং থেকে বাড়িয়ে ৭নং বিপদ সংকেত ঘোষনা করা হয়েছে।

ঘুর্ণিঝড় মোকাবেলা ও জানমালের ক্ষয়ক্ষতি শুন্যের কোটায় রাখতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন দফায় দফায় জরুরী সভা ও কার্যকর ব্যবস্থা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছেন। খোলা হয়েছে জেলা নিয়ন্ত্রন কক্ষ। জনস্বার্থে জরুরী প্রয়োজনে দু’টি ফোন নং দেয়া হয়েছে- ০৪৭১-৬৩২৮১ ও ০১৭৩৩-০৭৩৬০৪।

জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল ‘ঘূর্ণিঝড় ফণি’ মোকাবিলা করতে জেলার সকল সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিজ নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করেছেন।

পাশাপাশি সাধারণ জনগণকে সর্বোচ্চ সতর্কতা, সাবধানতা অবলম্বনের আহবান জানানো হয়েছে। শনিবার (৪মে) সকালে ঘুর্ণিঝড় ‘ফণি’র সম্ভাব্য আঘাত হানার পূর্বাভাসকে মাথায় রেখে এর আগেই নিরাপদ স্থানে নিরাপত্তার সাথে অবস্থানের অনুরোধ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের সচেতনতা-ই প্রথম পদক্ষেপ। দূর্যোগ মোকাবেলা করতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো সজাগ ও প্রস্তুত রয়েছে।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে জেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি জরুর সভা সূত্রে জানা গেছে- জেলার ১৩৭টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক ইউনিয়নে মেডিকেল টিম ও স্বেচ্ছাসেবক টিম প্রস্তুত, ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ সংস্কার, শুকনা খাবার মজুদ রাখা, ওষুধের পর্যাপ্ততা নিশ্চিতকরণসহ দুর্যোগ মোকাবেলায় সম্ভাব্য সকল প্রস্তুতি নিশ্চিত করার কথা জানানো হয়।

সভায় জানানো হয়- জেলায় দুর্যোগ মোকাবেলায় ৩২শ প্যাকেট শুকনা খাবার, ১১৬ টন চাল, ১ লক্ষ ৯২হাজার টাকা, ১১৭ বান টিন, গৃণ নির্মাণে ৩ লক্ষ ৫১ হাজার টাকা ও ৪০ পিস শাড়ি মজুদ আছে।

সভায় ১৫-২০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছাসের আশংকা করে বলা হয়, ৮, ৯ ও ১০ নম্বর সর্তক সংকেত আসলে উপকূলীয় মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে নিতে হবে। যতদূর সম্ভব দ্রুততার সাথে মাঠের ফসল ঘরে তুলতে হবে। সংকেত প্রচারে ইমামদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

সভায় জেলা প্রশাসন, সকল সরকারি বিভাগ, জনপ্রতিনিধি, বেসরকারি সাহায্য সংস্থা ও জনগণের সমন্বয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’ মোকাবিলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেখানে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারাসহ ৭ উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ায় পানিতে ডুবে প্রতিবন্ধী শিশুর মৃত্যু

কলারোয়ায় পুকুরের পানিতে ডুবে সোনিয়া (১২) নামের শারীরিক প্রতিবন্ধী একবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় ‘আমরা সেবক একতা সংঘ’র সূধী সমাবেশ ও কমিটি গঠন

‘শাসন নয় সহযোগিতা, শোষন নয় সেবা’- এই মূলনীতিকে সামনে রেখেবিস্তারিত পড়ুন

বিশ্ব পরিবেশ দিবসে কলারোয়ায় ছাত্রলীগের বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি

‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস’ উপলক্ষ্যে কলারোয়ায় ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচিবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় জগ্ননাথ দেবের স্ন্যানযাত্রা অনুষ্ঠিত
  • অভিজ্ঞতায় মহাপ্রলয়ংকারী আম্পান
  • সাতক্ষীরার গ্রাম ডাক্তার মিজানুরের মৃত্যুতে কলারোয়া গ্রাম ডাক্তার সমিতির শোক
  • করোনা আক্রান্তদের জন্য পাঠানো হলো সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের সুষম ফুড প্যাকেজ
  • কলারোয়ার দেয়াড়ায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
  • কলারোয়ায় আম্ফানে লন্ডভন্ড বসতঘর, ক্ষতিগ্রস্থের তালিকায় নেই এক হতদরিদ্র
  • দরিদ্রতাকে হার মানিয়ে ‘এ+’ অর্জন করলো কলারোয়ার কেঁড়াগাছির ইকরামুল
  • কলারোয়ায় ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদ) উদ্যোগে সহায়তা প্রদান
  • ক্ষমতা ক্ষণ স্থায়ী, তবে কর্মের ভিতরে মানুষ চির স্মরনীয় হয়ে থাকে
  • কলারোয়ায় বিদায়ী ইউএনও’কে সম্মাননা আ.লীগের
  • কলারোয়ায় উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বিদায়ী ইউএনও’কে সম্মাননা
  • বাগআঁচড়া গ্রামীণ ব্যাংক কর্মকর্তার উদ্যোগে মাস্ক ও হ্যান্ডগ্লাভস বিতরণ