মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

বর্ণিল আয়োজনে শেষ হয়েছে সাতক্ষীরার জেলা পর্যায়ের বিজয় ফুল প্রতিযোগিতা

শেষ হয়েছে জেলা পর্যায়ের বিজয় ফুল প্রতিযোগিতা। বিজয় ফুল প্রতিযোগিতার সব আয়োজন সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই বিজয় ফুল প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: বদিউজ্জামান।

এ সময় প্রতিযোগীরা তাদের তৈরি বিজয় ফুলের সাথে হাত নাড়িয়ে বিজয় ফুল থিম সং পরিবেশন করে।

সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা ‘বিজয় ফুল’ তৈরি, গল্প ও কবিতা রচনা, কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকন, একক অভিনয়, চলচ্চিত্র নির্মাণ এবং দলগত দেশাত্মাবোধক ও জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।
নতুন প্রজন্মের কাছে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা উপলব্ধি এবং সংগ্রামী ইতিহাস জানানোই ‘বিজয় ফুল’ তৈরি প্রতিযোগিতা ও ‘বিজয় ফুল’ অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ্য।

প্রতিযোগিতায় বিজয় ফুল নির্মাণ করে ক বিভাগে প্রথম হন তালার উষসী মজুমদার, দ্বিতীয় হন কালিগঞ্জের আছিয়া খাতুন, তৃতীয় হন সদরের নিশাদ তাসনিম। খ বিভাগে প্রথম হন সদরের সাদিয়া ইয়াসমিন, দ্বিতীয় হন দেবহাটার ওমর ফারুক, তৃতীয় হন কালিগঞ্জের আনিসা তাসনিম সিমি। গ বিভাগে প্রথম হন শ্যামনগরের আবু সাঈদ, দ্বিতীয় হন সদরের আজমিরা সুলতানা, তৃতীয় হন তালার মেহেদী হাসান। বিচারক ছিলেন স্থানীয় সরকারের উপ পরিচালক হুসাইন শওকত, ইউনিভার্সাল আর্টের আব্দুস সবুর ও শিল্পকলার নাজমুস সাদাত মন্টি।

গল্প রচনা প্রতিযোগিতায় ক বিভাগে প্রথম হন সদরের অভিদ্বীপ ভট্টাচার্য্য, দ্বিতীয় হন কলারোয়ার দিব্যজ্যোতি হালদার, তৃতীয় আশাশুনির প্রণয় কৃষ্ণ দাস। খ বিভাগে প্রথম হন সদরের সুমাইয়া রহমান, দ্বিতীয় আশাশুনির অয়ন ব্যানার্জী। গ বিভাগে প্রথম হন আশাশুনির অর্পণ কৃষ্ণ আঢ্য, দ্বিতীয় দেবহাটার শিহাব জুহুবী আবীব, তৃতীয় কলারোয়ার সুমাইয়া ইয়াসমিন ফারহা। বিচারক ছিলেন শিক্ষাবিদ কাজী মো: ওলিউল্যাহ, প্রাক্তন অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদ ও উদীচীর জেলা সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান ছট্টু।

দেশাত্ববোধক সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় ক বিভাগে প্রথম হন সদরের মৌমিতা হাসান সেজুতি ও তার দল, দ্বিতীয় হন দেবহাটার শৌর্য্যদেব বিশ্বাস ও তার দল, তৃতীয় হন কলারোয়ার শ্রেষ্ঠা হালদার ও তার দল, খ বিভাগে প্রথম হন সদরের ইন্দ্রজিত সরকার ও তার দল, দ্বিতীয় হন আশাশুনির শ্রেয়সী মুখার্জী ও তার দল, তৃতীয় তালার অনুপমা পাল ও তার দল। গ বিভাগে প্রথম হন সদরের প্রান্তদেব ভট্টাচার্য্য ও তার দল, দ্বিতীয় তালার মানাসী সাধু ও তার দল, তৃতীয় হন কালিগঞ্জের অনন্যা সরকার ও তার দল। বিচারক ছিলেন আবু আফফান রোজ বাবু, শ্যামল কুমার সরকার ও শহিদুল ইসলাম।

জাতীয় সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় ক বিভাগে প্রথম হন সদরের মৌমিতা হাসান সেজুতি ও তার দল, দ্বিতীয় হন দেবহাটার শৌর্য্যদেব বিশ্বাস ও তার দল। খ বিভাগে প্রথম হন সুপ্তি বিশ্বাস ও তার দল, দ্বিতীয় হন তালার দল, তৃতীয় দেবহাটার লতা বিশ্বাস ও তার দল। গ বিভাগে প্রথম হন তালার দল, দ্বিতীয় হন সদরের প্রান্তদেব ভট্টাচার্য্য ও তার দল, তৃতীয় হন দেবহাটার শশীকলা স্বর্ণকার ও তার দল। বিচারক ছিলেন আবু আফফান রোজ বাবু, শ্যামল কুমার সরকার ও শহিদুল ইসলাম।

কবিতা রচনায় ক বিভাগে প্রথম হন কালিগঞ্জের মাহা ছাকিব, দ্বিতীয় হন দেবহাটার রুকাইয়া আমিন, তৃতীয় হন কলারোয়ার দিব্যজ্যোতি হালদার। খ বিভাগে প্রথম হন দেবহাটার সুমাইয়া ইয়াসমিন, দ্বিতীয় হন তালার কানিজ ফাতেমা মুন্নী, তৃতীয় হন কলারোয়ার মো: ইমারান হোসেন। গ বিভাগে প্রথম হন দেবহাটার নাজমিন হোসেন রিয়া, দ্বিতীয় হন তালার প্রজ্ঞা পারমিতা মন্ডল, তৃতীয় হন সদরের পারভেজ ইমাম।

বিচারক ছিলেন প্রাক্তন অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদ, ঈক্ষণের পল্টু বাসার ও সহকারি অধ্যাপক শুভ্র আহমেদ।

কবিতা আবৃত্তিতে ক বিভাগে প্রথম হন সদরের রুকাইয়া রহমান, দ্বিতীয় হন আশাশুনির নাওসিন ইসলাম, তৃতীয় হন তালার ¯েœহা মন্ডল। খ বিভাগে প্রথম হন সদরের আজিম খান, দ্বিতীয় হন শ্যামনগরের নাবিলা তাবাচ্ছুম মোহনা, তৃতীয় হন তালার কানিজ ফাতেমা মুন্নী। গ বিভাগে প্রথম হন সদরের মারজান বিনতে আমিনউল্লাহ, দ্বিতীয় হন দেবহাটার তাকিয়া আহছান, তৃতীয় হন শ্যামনগরের ইন্দ্রজিৎ জোয়াদ্দার।

বিচারক ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্টেট আবু সাঈদ, উদীচীর মনিরুজ্জামান ছট্টু ও দিলরুবা রোজ।

একক অভিনয়ে ক বিভাগে প্রথম হন সদরের তনিমা জামান, দ্বিতীয় হন কালিগঞ্জের জাহিন আবরার, তৃতীয় হন শ্যামনগরের ত্রিদীব বালা। খ বিভাগে প্রথম হন সদরের জান্নাত আলম, দ্বিতীয় হন কালিগঞ্জের শাহারিন নিগার, তৃতীয় হন দেবহাটার রুহানা সুলতানা। গ বিভাগে প্রথম হন কালীগঞ্জের দিশা সরকার, দ্বিতীয় হন সদরের তনিমা ঢালী, তৃতীয় হন তালার অমৃতা মুখার্জী। বিচারক ছিলেন আনসার আলী, বরুণ ব্যানার্জী ও শেখ মোসফিকুর রহমান মিল্টন।
চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় ক বিভাগে প্রথম হন সদরের মৌমিতা হাসান সেজুতি, দ্বিতীয় হন কলারোয়ার মারিয়া আক্তার জেমি, তৃতীয় হন আশাশুনির অর্পিতা দাশ। খ বিভাগে প্রথম হন সদরের অহিন অর্ণব বাছাড়, দ্বিতীয় হন কালিগঞ্জের মারিয়া সুলতানা, তৃতীয় হন তালার কানিজ ফাতেমা মুন্নি। গ বিভাগে প্রথম হন সদরের শুভজিৎ বন্দোপাধ্যায়, দ্বিতীয় হন কলারোয়ার প্রিয়াংকা রায়, তৃতীয় হন তালার নুরে জান্নাতি আখি।

বিচারক ছিলেন দিপক মৃধা, জামাল হোসেন ও নাজমুস ছাহাদাত মন্টি।

চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিযোগিতায় একটি চলচ্চিত্র জমা পড়ে সেটিও শর্তযুক্ত না হওয়ায় বিচারক সুমন কায়সার ও শেখ মোসফিুকুর রহমান মিল্টন প্রতিযোগিতা স্থগিত করে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

সাতক্ষীরা জেলা আ.লীগের সভা: কাউন্সিল উপলক্ষে বিভিন্ন উপ-কমিটি গঠন

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যাবিস্তারিত পড়ুন

সাংবাদিক বরুন ব্যানার্জী নামে মিথ্যা মামলা : তালা প্রেসক্লাবের নিন্দা ও প্রতিবাদ

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সম্মানীত সদস্য, একাত্তর টিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ও অনলাইনবিস্তারিত পড়ুন

নতুন সড়ক পরিবহন আইন : প্রতিবাদে সাতক্ষীরার সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধ

নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে সাতক্ষীরার সকল রুটে বাসবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরার ভাদড়ায় ফুটবল টুর্নামেন্টে ফাইনালে সাতক্ষীরার সপ্তগ্রাম
  • সাতক্ষীরার শিল্পী মিরাদুল মুনীমের কন্ঠে শিশুদের গানে মডেল হলেন বিচারপতি আব্দুর রউফ
  • সাতক্ষীরায় ড্রাইভিং প্রশিক্ষণের প্রথম ব্যাচের সনদপত্র বিতরণ
  • মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সাতক্ষীরা জেলার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা
  • আশাশুনির ধর্ষন মামলার আসামিকে গ্রেপ্তারের দাবিতে সাতক্ষীরায় সংবাদ সম্মেলন
  • মাদক ব্যবসার অভিযোগে সাতক্ষীরার তলুইগাছা থেকে যুবক গ্রেপ্তার
  • সাতক্ষীরা জেলা ব্যাপী ফেন্সিডিলসহ ৭ জন গ্রেপ্তার
  • সাতক্ষীরার তুজলপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় শিশুসহ আহত ৪
  • সাতক্ষীরায় ফলের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ
  • সাতক্ষীরায় আকিজ মটরস্’র ডিলার মেসার্স সিয়াম মটরস্’র শো-রুমের উদ্বোধন
  • সাতক্ষীরার ব্রহ্মরাজপুরে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এ ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ
  • সাতক্ষীরা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের কমিটির অনুমোদন