মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

বেনাপোল চেকপোস্টে তল্লাশির নামে হয়রানি! দূর্ভোগে যাত্রীরা

যশোরের বেনাপোল চেকপোস্টে তল্লাশির নামে চলছে হয়রানি। এতে দূর্ভোগ ও বিরক্ত হচ্ছে যাত্রীরা। কাস্টমস ক্লিয়ারেন্সের পরও যাত্রীদের দু’দফায় পড়তে হয় বিজিবির টেবিল চেকপোস্টের সামনে। যুক্তিসংগত কারণে তল্লাশির আইন থাকলেও, হাতড়ানো হয় প্রতিটি ব্যাগ। কখনও ফেলে রাখা হয় মেঝেতে।

বেনাপোলের বিজিবি চেকপোস্টে মেঝের চারিদিকে ব্যাগ ছড়িয়ে ছিটিয়ে তল্লাশী নিত্যদিনের ঘটনা। ব্যাগ-লাগেজ মেঝেতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ওলট পালট করে চলে তল্লাশি।

ভারত থেকে বেনাপোল হয়ে দেশে আসা যাত্রীরা ইমিগ্রেশন কাস্টমসের পর, বন্দর থেকে বেরিয়েই আবার বিজিবির টেবিল চেকপোস্টের মুখোমুখি হয়। চলে প্রতিটি ব্যাগ, লাগেজ হাতিয়ে তল্লাশি। তাদের ইউনিফর্মে নেই কোন নেমপ্লেট। আইনি সুরক্ষা চাইলে ক্যাম্পে নেয়ার প্রচ্ছন্ন হুমকি দেয়া হয়।

এখানেই শেষ নয়, তিন কিলোমিটার সামনেই একই বাহিনীর চেকপোস্ট। আবারও প্রতিটি লাগেজ হাতড়ে তল্লাশি, আর প্রশ্নবান।

ভারত থেকে আসা যাত্রীদের ভাষায় এই তল্লাশির ধরন অসম্মানজনক। যাত্রীদের কথায় যাওয়ার আগে একটু আইনে চোখ বোলানো যাক।

কাস্টমস আইন ১৯৬৯ এর সেকশন ৬ এর বলে, বিজিবিকে আটটি ধারার ক্ষমতা দেয়া হয় ২০১৭ সালের ১৫ নভেম্বর। যদিও এসব চেকপোস্ট চলছিলো তার আগে থেকেই। আইনের ১৫৮ ধারা অনুযায়ী যুক্তিসংগত কারণে তল্লাশির কথা বলা হলেও, বিজিবির সদস্যরা সবার লাগেজেই যুক্তিসংগত কারণ খুঁজে পান। আবার ১৫৯ ধারায় গেজেটেড কাস্টমস কর্মকর্তা অথবা ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে তল্লাশির কথা বললেও, যাত্রীকে সেই সুরক্ষা দেন না দায়িত্বরত সদস্যরা।

ভ্রমণ, চিকিৎসাসহ নানা কারণে ভারত থেকে প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ হাজার যাত্রীর যাতায়াত বেনাপোলে। যাদের মতে একই সংস্থার দুইদফা এমন তল্লাশি রীতিমতো মানহানীকর।

এক যাত্রী বলেন, ‘একই সংস্থার দুইবার তল্লাশির কোন যৌক্তিকতা নাই।’

আরেক যাত্রী বলেন, ‘ওইখান থেকে বের হবার পর অনেকের কাছে অবৈধ জিনিস থাকতে পারে। কিন্তু চেকিং পদ্দতিটা আরও উন্নত করা দরকার। তাদের আচরণ ভালো করা দরকার।’

কাস্টমস কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসেন চৌধুরী বলেছেন, চলতি তল্লাশির ধরন যাত্রীসেবার অন্তরায়। ক্ষোভ আছে ব্যবসায়ীদের মধ্যেও।

তিনি বলেন, ‘নিরাপত্তার খাতিরে কেউ যদি অভিযোগ করতে চায় তাহলের তারও একটা নীতিমালা থাকা দরকার।’

ইন্দো বাংলা চেম্বার সভাপতি মতিয়ার রহমান বলেন, ‘এটা আর কতোদিন? আমরা বিরক্ত। নোম্যন্সল্যান্ডের তিন জায়গায় চেকিং। এটার কোন যুক্তি নেই। তবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে যে কোন এজেন্সি এ কাজ করতে পারে।’

তবে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম বলেন, সমস্যা সমাধানে এরই মধ্যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি। সে কারণেই আমরা লাগেজ স্ক্যানার বসিয়েছি। এছাড়াও আমরা চেকপোষ্টে সন্দেহভাজন যেসব ট্রাক বা বাস থাকবে সেগুলোকে তল্লাশী করব। এছাড়া অন্যসব গাড়ি আমরা তল্লাশী করব না।

একই রকম সংবাদ সমূহ

ঝিকরগাছায় রেললাইনের উপর চাইল্ড একাডেমীর থ্রি-হুইলার বিকল, ট্রেনের ধাক্কায় আহত ৬

যশোরের ঝিকরগাছায় রেললাইনের উপর থ্রি-হুইলার বিকল হয়ে পড়ায় ট্রেনের ধাক্কায়বিস্তারিত পড়ুন

শার্শার ভুলোটে ১৬দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে বাঁগআচড়া

যশোরের শার্শার ভুলোটে ১৬দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টে শেষ কোয়ার্টার ফাইনালে ৪-০গোলেবিস্তারিত পড়ুন

শার্শা ও বেনাপোলে মদ, ইয়াবাসহ ৩ব্যক্তি আটক

যশোরের শার্শার রুদ্রপুর সীমান্ত থেকে ১০ বোতল বাংলা মদসহ একজনবিস্তারিত পড়ুন

  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে পটল ক্ষেতের ফলন্ত গাছ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা
  • কেশবপুরের কলাগাছি বাজারে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং উদ্বোধন
  • কেশবপুরে জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান উদ্বোধন
  • কেশবপুরে জাতীয় স্যানিটেশন মাস উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা
  • শার্শায় অন্যদের অশ্লীল দৃশ্য ভিডিও করায় যুবক নিখোঁজ! পরস্পর বিরোধী বক্তব্য
  • শার্শার ধলদায় ১৬দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে বাঁগআচড়া
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে ‘হেলাল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের’ উদ্বোধন
  • কেশবপুরের সাগরদাঁড়ি সড়কটি চলাচলের অযোগ্য ॥ সংস্কার না হলে মধুমেলা ম্লানের শংকা
  • বেনাপোলে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি আটক
  • কেশবপুরে মধুসূদন গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ২য় খেলায় প্রভাতী ক্লাবের জয়
  • কেশবপুরে জাতীয় কৃষক পার্টির মতবিনিময় সভা
  • নানা সমস্যায় জর্জরিত শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স