সোমবার, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

মনিরামপুরের রাজগঞ্জে দ্রব্যমূল্যের ঊর্দ্ধগতি ।। মহাসংকটে দরিদ্র মানুষ

মনিরামপুরের রাজগঞ্জে দ্রব্যমূল্যের বাজারে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে, এতে মহাসংকটে পড়েছে দরিদ্র শ্রেণির মানুষ। এই দরিদ্র মানুষেরা সারাদিন অন্যের জমিতে অথবা অন্যের ফার্মে কাজ করে দেড় শ’/ দুই শ’ টাকা মুজুরী পেয়ে বাজারে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে গেলেই মহা বিপদে পড়ছে তারা।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাজগঞ্জ বাজার ঘুরে দেখাগেছে- মানুষের নিত্যদিনের চাহিদায় যে সমস্ত জিনিসপত্র প্রয়োজন, সেসমস্ত জিনিসপত্রের দাম বাজারে আকাশ ছোঁয়া। বাজার থেকে জিনিসপত্র কিনতে গেলেই মহা বিড়ম্বনায় পড়ছে তারা। বেশি বিড়ম্বনায় পড়ছে দরিদ্র শ্রেণির মানুষেরা।

রাজগঞ্জ বাজারে কয়েকজন ক্রেতা-বিক্রেতাদের সাথে আলাপ করে জানাগেছে- রান্নার কাজে ব্যবহৃত পেঁয়াজ, রসুনের দাম চলছে সমান তালে। শীতের শুরুতেই সব ধরণের সবজির দাম সাধারণতো কম থাকে। কিন্তু এই সময় বাজারে সব ধরণের সবজির দাম বেশি। সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে রয়েছে।

কয়েকজন ক্রেতা এ প্রতিনিধিকে জানান- কী করে সংসার চালাবো ভাবতেছি। বাজারে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে যেয়ে রীতিমত হুছুট খাচ্ছি। সারাদিনের রোজগারে বাজারে সদয় করতে পারছি না। ক্রেতাদের দাবী- খুব দ্রুত বাজার মনিটরিং করা না হলে ব্যবসায়ীদের কাছে জিম্মি হতে হচ্ছে। বাজারে এমন পরিবেশ ব্যবসায়ীদের সাথে সাধারণ ক্রেতাদের প্রায় বাকবিতন্ডা হচ্ছে।

বাজারের মুদি ব্যবসায়ী সুব্রত দত্ত জানান- খুচরা সয়াবিন তেল ৮৫ টাকা কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে। আগামী কাল থেকে ৯০ টাকা কেজিপ্রতি বিক্রি করতে হবে। এছাড়া মুদি দোকানের সব ধরণের জিনিসপত্রের দাম কম বেশি বেড়েছে।
বাজারের চাল ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক জানান- এ বাজারে চালের দাম এখনো বেশি বাড়েনি। তবে, ধানের দাম যেহেতু বাড়ছে, তাতে করে চালের দামও খুব শিগরই বাড়বে।

এদিকে, বেড়েছে গো-খাদ্যের দামও। এখনকার সময়ে গরুর খামারীসহ যারা বাড়ীতে ২/১ গরু পোশেন, তারা খড়ের (বিচাঁলী) পাশাপাশি বাজারের কেনা বিভিন্ন তৈরি খাবার খাওয়ানো শুরু করেছে। সেই খাবারগুলোর দাম (প্রত্যেক খাবারে) কেজিপ্রতি ২/৫ টাকা বেড়েছে।

ক্রেতা দরিদ্র শওকত হোসেন বলেন- সব জিনিসপত্রের দাম বাড়তি। কী করে কিনবো ভেবে পাচ্ছি না।

রাজগঞ্জ বাজারের খুচরা তরকারী দোকানদার সাইফুল আলম বলেন- আমরা যখন যেমন দামে মালামাল কিনি, তখন তেমন দামে বিক্রি করি। আমাদের কী দোষ। সব মিলিয়ে চরম বিপদে আছে দরিদ্র শ্রেণির খেটে খাওয়া মানুষ। বাজারে জিনিসপত্রের দাম অস্থিরতার কারণে ক্ষুন্ন হচ্ছে সরকারের ভাবমুর্তি।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কেশবপুরে নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া দিবস পালিত

যশোরের কেশবপুর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের আয়োজনেবিস্তারিত পড়ুন

কেশবপুরে জলাবদ্ধ বিলে ইরি চাষের লক্ষ্যে পানি সরানোর দাবীতে স্মারকলিপি

যশোরের কেশবপুরে বলধালী বিল-সহ জলাবদ্ধ বিলগুলিতে ইরি চাষের জন্য পানিবিস্তারিত পড়ুন

মনিরামপুরের রাজগঞ্জে বিবাহ রেজিস্ট্রার শিক্ষক জাহান আলীর ইন্তেকাল

মনিরামপুরের রাজগঞ্জ এলাকায় মাওলানা আলহাজ্ব জাহান আলী (৬৭) নামের একবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরা জজ কোর্টের এপিপি এড.আশরাফুল আলমের শাশুড়ীর মৃত্যু
  • মনিরামপুরের খেদাপাড়ায় সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন
  • মজুদ বৃদ্ধির লক্ষ্যে সারের বাফার গোডাউন নির্মাণ হবে : শিল্প প্রতিমন্ত্রী
  • কেশবপুরে হরিহর নদী থেকে মৃত ডলফিন উদ্ধার
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনের ইন্তেকাল, রাষ্ট্রীয় মর্যদায় দাফন
  • কেশবপুরে ২ কেজি গাঁজাসহ আনোয়ার আটক
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যের মতবিনিময়
  • বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত ১০টি কুকুর উপহার দিল ভারত
  • মুসলিম উম্মার শান্তি কামনায় শেষ হলো যশোরের আঞ্চলিক ইজতেমা
  • কেশবপুরে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত
  • কেশবপুরে আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের সভাপতি নাসিমা, সম্পাদক জিনজির
  • ৭ ডিসেম্বর কেশবপুর হানাদার মুক্ত দিবস