সোমবার, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

ভিডিও

লড়াই করে জখম, অতঃপর ফার্মেসিতে গিয়ে চিকিৎসা নিল হনুমান

লড়াই করে জখম, অতঃপর ফার্মেসিতে গিয়ে চিকিৎসা নিল হনুমান।

সপ্তাহান্তের সকালে পশ্চিমবঙ্গের মল্লারপুর স্টেশন চত্বর যেন কুস্তির আখড়া।

শনিবার সকাল ৯টার দিকে স্টেশনে ঢোকার মুখে দুই পূর্ণবয়স্ক হনুমানের মারপিট দেখতে ভিড় জমেছিল। কে কাকে আঘাত করে মাটিতে ফেলতে পারবে তার লড়াই চলতে থাকে। হনুমানের মল্লযুদ্ধ দেখে অনেকে হাততালিও দিতে থাকেন।

মারামারিতে জখম হয় দু’টি হনুমানই। কিছুক্ষণ পরে রণে ভঙ্গ দিয়ে একটি পালিয়ে যায়। অন্যটি বসে থাকে চুপ করে।

বেশ কয়েক জায়গায় ক্ষতস্থান থেকে রক্ত ঝরতে দেখা যায়।

সকালের ভিড়ে ঠাসা স্টেশন চত্বরে যাত্রীদের নিয়ে টোটোর যাওয়া আসা চলতেই থাকে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আচমকা একটি টোটোয় চড়ে বসে জখম হনুমানটি। করুণ চোখে সহযাত্রীদের গায়ে হাত রেখে বোঝানোর চেষ্টা করে সে আক্রমণ করবে না।

মল্লারপর স্টেশন থেকে খানিকটা দূরে পঞ্চায়েত ভবন।

সেখানেই একটি ওষুধের দোকানের সামনে ঝুপ করে নেমে পড়ে হনুমানটি।

ওষুধ দোকানের মালিক আনাজুল আজিম বলেন, “দোকানের সামনে বেঞ্চে বসে অপেক্ষা করছিল হনুমানটি। দোকানের ভিড় একটু কমতেই লাফ দিয়ে কাউন্টারে উঠে বসে কোমরের নীচে ও শরীরের অন্য অংশে ক্ষতস্থানগুলো দেখাতে থাকে। আমার হাত ধরে এমন ভাব করে যেন চিকিৎসা চাইছে।”

দোকানে ওষুধ নিতে এসেছিলেন শক্তিপদ মিস্ত্রি নামে স্থানীয় এক যুবক। তিনিও হাত লাগান জখম হনুমানের ক্ষতে মলম ও ব্যান্ডেজ করায়। ওষুধ লাগিয়ে ব্যান্ডেজ করে দেওয়ার পরও ক্ষতস্থানগুলো বারবার দেখাতে থাকায় ওই ওষুধ দোকানদারের মনে হয় ব্যথার জন্য হনুমানটি এরকম করছে। কাপে পানি নিয়ে একটি ব্যথা কমার ওষুধও খাওয়ানো হয় তাকে। সঙ্গে কয়েকটি কলা। কিছুক্ষণ বসে থেকে আনাজুলের কাঁধে হাত রেখে দোকানের কাউন্টার থেকে রাস্তায় নেমে ফের একটি স্টেশনগামী টোটোয় চড়ে বসে সে।

মল্লারপুরের ঘটনা মনে করিয়ে দেয় বছর আড়াই আগে এরকমই এক শনিবারের সকালে হুগলির চুঁচুড়া ইমামবাড়া (সদর) হাসপাতালে পুরষ বিভাগে কর্তব্যরত নার্সদের চমকে দিয়েছিল একটি হনুমান। ডান পায়ে রক্ত ঝরছিল। নার্সদের বারবার ক্ষতস্থান দেখিয়ে হাত নেড়ে ডাকতে থাকে হনুমানটি। অন্যরা ভয় পেলেও একজন নার্স এগিয়ে এসে হনুমানটির চিকিৎসা করেন। ব্যান্ডেজ করে দেন পায়ে। তারপরে তার গায়ে হাত বুলিয়ে দিতে শুশ্রূষা হয়েছে বুঝতে পেরে চলে যায় হনুমানটি।

বন্যপ্রাণী গবেষক শান্তিনিকেতনের ঈশানচন্দ্র মিশ্র বলেন, “যেসব প্রাণী মানুষের কাছাকাছি থাকে তাদের কেউ কেউ মানুষের আচরণ, কার্যকলাপ অনুসরণ করে। হনুমান, বানর বা কুকুরের অনুসরণের ক্ষমতা অনেক বেশি। ”

সূত্র: আনন্দবাজার

news18 এর সৌজন্যে ভিডিও:

সঙ্গীর সঙ্গে মারপিট করে টোটোয় চেপে নিজেই ওষুধের দোকানে ছুটে গেল হনুমান!

Posted by News18 Bangla on Saturday, 16 November 2019

একই রকম সংবাদ সমূহ

এবারের মিস ইউনিভার্স জোজিবিনি তুনজি

২০১৯ সালের মিস ইউনিভার্সের খেতাব জিতে নিলেন মিস দক্ষিণ আফ্রিকাবিস্তারিত পড়ুন

যে গ্রামে আত্মহত্যা করতে যায় শত শত পাখি!

ভারতে এমন একটি গ্রাম আছে যেখানে অদ্ভুত ঘটনা ঘটে। সেইবিস্তারিত পড়ুন

ধুমপান না করলে কর্মীদের অতিরিক্ত ৬ দিনের ছুটি দিচ্ছে যে সংস্থা!

ধুমপান না করলে কর্মীদের অতিরিক্ত ৬ দিনের ছুটি দিচ্ছে এইবিস্তারিত পড়ুন

  • ভুলে হাত মেলানো না হওয়ায় সেই ছোট্ট মেয়েটির বাড়িতে আবুধাবির রাজা!
  • দৌড়ে পার্লামেন্টে ঢুকলেন মন্ত্রী, ছবি ভাইরাল
  • মালয়েশিয়ায় ফাঁসি থেকে রক্ষা পেলো দুই বাংলাদেশি
  • ধর্ষণকারীদের জনসমক্ষে পিটিয়ে মেরে ফেলা উচিত : জয়া বচ্চন
  • একটি ছবিই ৪১ বছর পর মায়ের সঙ্গে দেখা করাল ছেলের
  • মাত্র ২০ মিনিটেই ধর্ষককে চিহ্নিত করল পুলিশ কুকুর!
  • বিজ্ঞাপন দেখে তেল কিনে প্রতারিত।। বিজ্ঞাপনের মডেল গোবিন্দ-জ্যাকিশ্রফকে জরিমানা
  • অদ্ভূত ফটোশ্যুট নবদম্পতির, ছবি ভাইরাল!
  • যেসব দেশে নেই কোনও গ্রাম!
  • বিশ্বের সবচেয়ে দামি মুদ্রা যেগুলো
  • জীবন নিয়ে কেউই পৌঁছাতে পারবে না পৃথিবীর এই স্থানে!
  • হাত-পায়ে ৩২ আঙুল, গ্রামবাসীর চোখে ‘ডাইনি’!!