সোমবার, জুলাই ৬, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

শ্যামনগরে দিনমজুরের ছেলে গোলাক গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে

ছেলে মেয়ের লেখাপড়ায় স্কুলের বেতন অন্যদিকে মাছের কাজ করে দিনমজুরি দিয়ে কষ্টের সাথে সংসারের চালান বাবা। বাড়িতে খাওয়া-দাওয়ার সমস্যা। ঘরে চাল থাকতো না অধিকাংশ সময়। বাবার উপার্জন কম। এ রকম আরও ডজন খানেক সমস্যা যখন সম্মুখে তখন পড়ালেখা বন্ধ করে দেয়ার ইচ্ছা করেছিল গোলক চন্দ্র সরদার।

মেধাবী ছাত্র গোলক জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫, সঙ্গে বৃত্তি পেয়েছে সে। তাই কষ্ট হলেও তখন সে পড়ালেখা ছাড়েনি। বাবার সহযোগিতার করে অন্যের জমিতে মজুরি খেটে শত কষ্ট সহ্য করেও পড়ালেখা চালিয়ে গেছে। কষ্ট আর চেষ্টার ফল পেয়েছে গোলক। এবারের ২০২০ এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে সে।

সাতক্ষীরা শ্যামনগর উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের ভামিয়া পশ্চিম পোড়াকাটলা গ্রামের শ্রী সুখেন্দ্র নাথ সরদারের ছেলে গোলক চন্দ্র সরদার।

শ্যামনগর উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া পি এন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী গোলক। সায়েন্স বিভাগ থেকে এ বছরের এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে সে। এতে খুশি গোলক ও তার পরিবার।

গোলক সবকটি বিষয়ে এ প্লাস পেয়ে মোট নম্বর পেয়েছে ৯৯৯। স্কুলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নম্বর তার। এছাড়াও আরও তিনজন ওই স্কুল থেকে এ প্লাস পেয়েছে।

গোলক সরদার জানান, তার এ অর্জন অনেক কষ্টের। স্কুল থেকে বাড়িতে এসে পড়ার জন্য খুব কম সময় পেয়েছে সে। বাবার সাথে মৎস্য কৃষি কাজ, কখনও আর্থিক অনটনে পরের জমিতে দিনমজুর হিসেবে অন্যের কাজ করতে হয়েছে তাকে এরই মাঝে লেখাপড়া করেছে।

গোলক আরও জানায়, নতুন নতুন স্কুল ড্রেস নতুন পোশাক কিনে দেয়ার সামর্থ্য ছিল না তার বাবার। অন্য বন্ধুদের বাবা-মা তাদের পকেট খরচ দিত, তবে তার বাবা-মা পারতো না। কান্না এসেছে অনেক। তবে এসএসসির ফলাফলে সেসব কষ্ট ধুয়ে গেছে।

শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে গোলক জানায়, শিক্ষকরা তাকে বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ দিয়েছে। এছাড়াও তার কাকা খোকন সরদার তার মামা তাকে অনেক সহযোগিতা করেছে।

গোলকের মা কবিতা রানী সরদার ছেলের এমন অর্জনের কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, টাকা ও কাজের জন্য অনেক সময় প্রাইভেট পড়তে, স্কুলে যেতে পারেনি গোকল৷ মাঝে মাঝে ক্ষেত খামারে প্রতিবেশীদের সঙ্গে কাজ করতে যেত। ও অনেক ভালো রেজাল্ট করেছে। ইচ্ছা আছে ছেলেকে চিকিৎসক বানানোর। তবে অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে হয়তো সেটি সম্ভব হবে না।

গোলকের বাবা শ্রী সুরেন্দ্র নাথ সরদার জানান, আমার কৃষি কাজে অনেক সময় দিয়ে সহযোগিতা করতো গোলক। দিনের অধিকাংশ সময় কাটতো পরিশ্রমে তার। তবে রাতের বেলা মনোযোগ দিয়ে পড়তো সে । এমনও হয়েছে দিনের বেলা কাজ করেছে আর সারা রাত পড়েছে।

ঠাকুরমা রানী ও ঠাকুর দাদা শ্রী দীনেশ চন্দ্র সরদার বলেন, অর্থনৈতিক সমস্যা আছে তবুও তাকে দাদু ভাইকে বলেছি তুমি পড়ালেখা চালিয়ে যাও। ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন তারা।

কাকা খোকন সরদার বলেন, গোলক চিন্তিত ভালো কলেজে ভর্তি হওয়া নিয়ে। এমন অর্থনৈতিক দৈন্যতায় গোলককে ভালো কলেজে ভর্তি করানো ও ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পুরন করতে খরচ বহন নিয়ে চিন্তিত রয়েছে বাবা-মা।

একই রকম সংবাদ সমূহ

গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসাসহ সাধারণ মানুষের সেবা কার্যক্রমে সেনাবাহিনী

যশোরের চৌগাছায় গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসাসহ সাধারণ মানুষের সেবা কার্যক্রম অব্যাহতবিস্তারিত পড়ুন

সুন্দরবনের পুলিশের নিরাপত্তা মহড়ায় এসপি মোস্তাফিজুর রহমান

সুন্দরবন, বনজীবী ও উপকুলের মানুষের যথাযথ নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় সাতক্ষীরার শ্যামনগরবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরা মেডিকেলে করোনা উপসর্গে চার ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু

কোভিড-১৯–এর উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তিবিস্তারিত পড়ুন

  • দুর্যোগ মোকাবেলায় খুলনা ও সাতক্ষীরা উপকূলীয় মানুষের পাশে সেনাবাহিনী
  • সাতক্ষীরায় সাপ্তাহিক সূর্যের আলো সম্মাননা পেলেন জেলার ৩ সাংবাদিক
  • আইন অমান্য করে নীলডুমুর বাজারে অবৈধ পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ
  • শ্যামনগরে উপজেলা চেয়ারম্যান, এসিল্যান্ডসহ ১২ইউপি চেয়ারম্যান হোম কোয়ারেন্টাইনে
  • মুজিববর্ষে গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসাসহ মানুষের পাশে সেনাবাহিনী
  • সুন্দরবনে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু খান বাহিনীর তিন সদস্য নিহত
  • শ্যামনগরে জনগণের মাঝে সুপেয় পানি বিতরণ যশোর সেনানিবাসের
  • সাতক্ষীরা জেলায় করোনায় প্রথম মৃত্যু দেবহাটায়
  • সাতক্ষীরায় আরো ১৪ জনের করোনা শনাক্ত ।। মোট আক্রান্ত ১৪৬
  • সাতক্ষীরায় র‌্যাব সদস্যসহ ২০জনের করোনা শনাক্ত
  • করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় ২৮৮ জন শনাক্ত
  • সুন্দরবনে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দিয়ে বাড়ি ফিরলেন দুই জেলে