শনিবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৯

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

সরকারের সমালোচকদের উন্নয়নে জবাব দিলেন ঝিকরগাছার সাবেক এমপি মনির

২০০১ সালে সরকার অবহেলায় দীর্ঘদিন সংষ্কার বিহীন খানা খন্দে ভরে ছিলো দেশের প্রধান স্থল বন্দর যশোর বেনাপোল মহাসড়ক । ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে জনগণের চলাচল অনুপযোগী দেশের এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি (৩৮ কি.মি) পিএমপি মেজরের আওতায় দ্রুত সংষ্কার করে জনগণের চলাচল উপযোগী করেন চৌগাছা ঝিকরগাছার সাবেক মন্ত্রী, সাবেক সফল কুটনৈতিক, সকলের শ্রদ্ধাভাজন মোস্তফা ফারুক মোহাম্মদ এমপি।
কিন্ত সড়কটি নির্মাণের পর কয়েক যুগ কেটে গেলেও পুননির্মাণ না হওয়ায় সংস্কার হলে এবং দুইশো বছরের প্রাচীন শিশু গাছের শিকড় নিচ থেকে চাপ সৃষ্টি করার কারণে এবং ২০ টন ওজন ধারণে সক্ষম রাস্তায় ৬০ টনের উপর ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন যান চলায় সংস্কার হলেও দ্রুতই রাস্তা নষ্ট হয়ে যায়। সড়কটি ২০১৪ সালের পর ঝিকরগাছা থেকে যশোর টার্মিনাল পর্যন্ত সড়কটি একেবারেই করুন অবস্থায় পড়ে। সেই নির্বাচনে চৌগাছা-ঝিকরগাছা আসনে আর্শীবাদ হয়ে আসেন তরুন রাজনীতিক এ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির।

এ্যাড. মনির এমপি নির্বাচিত হয়েই সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে ব্যস্ত হয়ে পড়েন সড়কটি সংষ্কারের জন্য। এরপর প্রধানমন্ত্রীর আস্থালাভ করে জায়গা করে নেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে।

তৃণমূল কর্মী থেকে এমপি এবং এমপি থেকে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়ে এমপি মনির চিন্তা করলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এবং ঐতিহাসিকভাবে বিশ্ব ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সাথে মিশে থাকা অবিভক্ত বাংলার যশোর রোডকে তিনি পুননির্মাণ করে ফোর লেনে উন্নিত করবেন। কারণ এই সড়কটি তৈরি হওয়ার পর থেকে শুধু সংস্কার হতে হতে সড়কটি বুড়ো হয়ে গেছে। তাকে নবযৌবন দিতে হবে, যেনো আগামী পঞ্চাশ-একশ বছরে আর হাত দিতে না হয়। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কিছু করতে পারাটাই এমপি হওয়ার স্বার্থকতা। যে ভাবা সেই কাজ। তিনি প্রতিজ্ঞা করেন সড়কটি তিনি পুননির্মাণ করবেন এবং পুননির্মাণ না হলে তিনি সড়কটি সংষ্কার করতে দিবেননা। পাকা সড়কে তিনি ইটের সলিং বুনিয়েছেন কিন্তু পিএমপি মেজরে কাজ হতে দেননি।
কারণ তিনি জানতেন একবার পিএমপি মেজর প্রকল্পের কাজ হলে তিন বছরের আগে আর ঐ সড়কে অন্য কোনো প্রকল্পের কাজ শুরু করা যায় না।
একপর্যায়ে তিনি সফল হন। মায়া থাকা সত্তেও জনহুমকির কারণ হওয়ায় ও ফোর লেন করার স্বার্থে ঐতিহাসিক গাছ কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন। সড়ক পুননির্মাণের টেন্ডার হয়ে যায়। কিন্তু একটি কুচক্রী মহল গাছ কাটার বিরুদ্ধে মামলা দিলেন। তৎকালীন যশোরের সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হলেন। কাজ শুরু করার সময় অতিবাহিত করে দিলেন এবং পিএমপি মেজর প্রকল্পের আওতায় ২৭ কোটি টাকায় সড়ক সংস্কারের টেন্ডার করে ফেললেন। এমপি মনির ষড়যন্ত্র টের পেয়ে বিএনপি পন্থি এক্সচেঞ্জ অফিসারকে ইনস্ট্যান্ট রিলিজ করার ব্যবস্থা করলেন।
ঢাকা থেকে সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রতিনিধি তিনজন এমপি সহ উক্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব ও চিপ ইঞ্জিনিয়ার সহ উর্ধ্বতন কর্মকতাদের যশোরে এনে বেনাপোল পর্যন্ত গাড়িতে নিয়ে গিয়ে রাস্তার বেহাল অবস্থা দেখালেন এবং তাদেরকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন পিএমপি মেজর প্রকল্পের কাজ তিনি হতে দেবেননা এবং এডিবির বরাদ্দকৃত ৩২৯ কোটি টাকা ফেরত এনে পুননির্মাণ করতে হবে। যে কথা সেই কাজ। ঢাকাতে ফিরে গিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী জনাব ওবায়দুল কাদের সাহেবকে সংসদীয় স্হায়ী কমিটির সভায় যুক্তি দিয়ে বাস্তব অবস্থা বুঝিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক লাখো জনতার জনসভায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকৃত ৩২৯ কোটি টাকার এডিপির প্রকল্প ফিরে যেতে পারে না। এক সপ্তাহের ভিতরে এডিবির অর্থ ফেরত এনে রি-টেন্ডার করান।

পাশাপাশি তিনি সড়ক ও সেতু মন্ত্রীকে বোঝাতে সক্ষম হন যে, যশোর রোড সোজা ভারতের মুম্বাইয়ের সাথে বাংলাদেশকে কানেক্ট করেছে। তাছাড়া এশিয়ান হাইওয়ের কথাও মাথায় রাখতে হবে, তাই সড়কটি অতি সত্তর সিক্স লেনে উন্নিত করতে হবে তাই কপতাক্ষ নদের উপরে ব্রিটিশ নির্মিত ব্রিজটি এখনই সিক্স লেনে তৈরি করা দরকার। তাহলে এই ব্রিজেও আর একশো বছরের আগে হাত দেওয়া লাগবেনা। সেতু মন্ত্রী জনাব ওবায়দুল কাদের মহাদয় এমপি মনিরের বক্তব্যের যৌক্তিকতা মেনে নিয়ে ১২৬ কোটি টাকার সিক্স লেনের (৬ লেনের)ব্রিজের প্রস্তাবটিও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রীর শেখ হাসিনার কাছে তুলে ধরলে তিনি একনেক বৈঠকে তা অনুমোদন দেন।

কিন্তু সরকার বিরোধী সমালোচকেরা না জেনেই সড়ক নিয়ে নানা সমালোচনা করতে থাকেন। তারা বলেছিলো- কত দেখলাম, কেউ বলতো নাতি পুতিরা দেখবে আমরা দেখে যেতে পারবোনা ইত্যাদি নানা কথা।

কিন্তু এমপি মনির এই দুটি কাজ করেই বসে থাকেননি। তিনি যশোর টু খুলনা, যশোর টু মাগুরা, যশোর টু নড়াইল, যশোর টু ঝিনাইদহ, নাভারন টু সাতক্ষীরা, ঝিকরগাছা মোবারকপুর টু মনিরামপুর, চুড়ামনকাটি টু চৌগাছা রিকনস্ট্রাকশন কাজ শুরু করান যা চলমান।
মনিহার টু মুড়লী মোড় ফোর লেন (৪লেন) দড়াটানা টু চাঁচড়া মোড় (ফোর লেন) সড়ক দুটো প্রকল্প ভূক্ত DPP করে আসেন। যে কাজ অনেক গুলো এখন দৃশ্যত চলমান। যশোরবাসীর স্বপ্ন এখন বাস্তবে রূপ নিতে চলেছে।

এর বাইরে তার নির্বাচনী এলাকা চৌগাছা-ঝিকরগাছা আসন সংশ্লিষ্ট চৌগাছা টু ঝিকরগাছা, চৌগাছা টু মহেশপুর চৌগাছা টু পুড়াপাড়া, চৌগাছা টু কোটচাঁদপুর, চৌগাছা টু কালিগঞ্জ, চৌগাছা টু শার্শা, সলুয়া টু কায়েমকোলা, কায়েমকোলা টু ঝিকরগাছা, ঝিকরগাছা টু বাগাআঁচড়া, ঝিকরগাছা টু কলারোয়া, বাঁকড়া খোলশী টু গদখালি, বেনেয়ালী টু ছুটিপুর, ঝিকরগাছা থানা মোড় টু গঙ্গানন্দপুর, ঝিকরগাছা হাসপাতাল মোড় টু গোয়ালদাহ বাজার, নাভারন টু বায়শা বাজার, পুরোন্দপুর টু বল্লা বাজার ভায়া বেজিয়াতলা, যশোরের ধর্মতলা টু শার্শা ভায়া ব্যাঙদাহ প্রমুখ উল্লেখযোগ্য।

এছাড়া স্হানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (LGED)অধীনে তার নির্বাচনী এলাকায় ১৪৭টি রাস্তা DPP ভুক্ত করে আসেন। যার সুফল চৌগাছা-ঝিকরগাছাবাসী পেতে যাচ্ছেন।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কেশবপুরের বরনডালি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে কলারোয়ার ছলিমপুর

কেশবপুরের বরনডালিতে ৮দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ২য় সেমিফাইনাল খেলায় ১-০গোলে কলারোয়ারবিস্তারিত পড়ুন

বেনাপোল কাস্টমসে নিয়োগ পরিক্ষায় আত্মীয়করণ!

যশোরের বেনাপোল কাস্টমসে বিভিন্ন পদে নিয়োগ পরীক্ষায় নির্বাচন কমিটির সভাপতিবিস্তারিত পড়ুন

কেশবপুর ও মণিরামপুর উপজেলা ভোরের সাথীর আঞ্চলিক সমাবেশ

যশোরের কেশবপুর উপজেলা ও মণিরামপুর উপজেলা ভোরের সাথীর আঞ্চলিক সমাবেশবিস্তারিত পড়ুন

  • কেশবপুরের সুফলাকাটি ইউনিয়ন ছাত্র কল্যাণ ফেডারেশনের কমিটি গঠিত
  • বেনাপোলে বিনা টাকায় ঘুষমুক্ত পরিবেশে কাষ্টমসের সিপাহি পদে পরীক্ষা দিল অর্ধলাখ শিক্ষার্থী
  • টাকা ছাড়া মিলছেনা সেবা ঝিকরগাছার কায়েমকোলা সাব পোস্ট অফিসে, অফিস চলছে ব্যক্তিগত নিয়মে
  • কেশবপুরে গাজী ব্রিক্সের সৌজন্যে ‘ভোরের সাথী’দের মাঝে গেঞ্জি প্রদান
  • কেশবপুরে চায়না এন্টারপ্রাইজের উদ্বোধন
  • বেনাপোল সীমান্তে গাজা ও ফেনসিডিলসহ আটক-২
  • কেশবপুরে বৈষম্য নিরসন ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উন্নয়নে কমিউনিটি সংলাপ
  • কেশবপুরে সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পরিচিতি সভা
  • কেশবপুরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম জন্মদিন পালিত
  • অবৈধ পথে ভারতে প্রবেশকালে বেনাপোলে ৫৪ জন আটক
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মশিয়ার রহমানের ইন্তেকাল
  • শার্শায় লবনকান্ডে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান