সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

১০ দিনের রিমান্ড শেষে রিজেন্টের সাহেদ সাতক্ষীরা কারাগারে

১০ দিনের রিমান্ড শেষে সাহেদ করিমকে সাতক্ষীরা আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে কড়া নিরাপত্তা প্রহরায় তাকে সাতক্ষীরার আমলী আদালত-৩ এ নেয়া হয়।
বিচারক রাজীব রায় তাকে সাতক্ষীরা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে রিমান্ডের চতুর্থ দিনে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে ২৯ জুলাই খুলনার র‌্যাব কার্যালয় থেকে তার গ্রেপ্তারস্থল সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী শাখরা-কোমরপুর এলাকায় নিয়ে যাওয়া যায়। বিকেলে তাকে লাবণ্যবতি নদীর ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজের ওপর মিনিট দশেক রাখা হয়। পরে তাকে আবারো খুলনায় র‌্যাব-৬ এর সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে তদন্তের স্বার্থে রিমান্ডের প্রাপ্ত তথ্য না জানানো হলেও দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, সাহেদ করিম মাঝে মাঝে খুব ক্ষ্যাপাটে আচরণ করছেন। আবার কখনো কখনো ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করছেন। তবে গ্রেপ্তার হওয়ার আগে সাতক্ষীরায় তার অবস্থান ও অস্ত্রসহ বিভিন্ন বিষয়ে তিনি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে তিনি তথ্য দিয়েছেন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরা ক্যাম্পের এসআই রেজাউল ইসলাম জানান, গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে, তবে অধিকতর তদন্তের স্বার্থে প্রকাশ করা সমীচীন হবেনা।

দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর সীমান্তে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার হওয়া রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত রোববার ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন সাতক্ষীরার আমলী আদালত-৩ এর বিচারক (ভার্চুয়াল) রাজীব রায়। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা খুলনা র‌্যাব-৬ এর সাতক্ষীরা ক্যাম্পের উপপরিদর্শক রেজাউল করিমের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন শুনানী শেষে এ আদেশ দেন। পরের দিন সোমবারই তাকে ঢাকা থেকে খুলনা র‌্যাব কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

এর আগে ১৫ জুলাই বুধবার ভোরে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর সীমান্তের লাবন্যবতী নদীর উপর নির্মিত বেইলী ব্রীজ এর নীচ থেকে সাহেদকে বোরখা পরিহিত অবস্থায় গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে একটি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। এরপর তাকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ওই দিন রাতে র‌্যাব-৬ এর সিপিসি-১ এর ডিএডি নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৯৭৮ সালের আর্মস অ্যাক্টের ১৯-এ উপধারা এবং ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫ এর বি/এ ধারায় দেবহাটা থানায় একটি মামলা(৫নং) করেন। মামলায় সাহেদ করিমসহ তিনজনকে আসামী করা হয়।

একই রকম সংবাদ সমূহ

সাতক্ষীরার জলাবদ্ধ এলাকা পরিদর্শনে ডিসি মোস্তফা কামাল

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়নের জলাবদ্ধ এলাকা পরিদর্শন করেছেন জেলাবিস্তারিত পড়ুন

জোড়দিয়ায় গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী কাবাডি খেলা অনুষ্ঠিত

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ী ইউনিয়নের জোড়দিয়া গ্রামে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহীবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ার সদ্যসাবেক ওসি শেখ মুনীর কক্সবাজার সদর মডেল থানার দায়িত্বে

কলারোয়া থানার সদ্যসাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলহাজ্ব শেখ মুনীর-উল-গীয়াস যোগবিস্তারিত পড়ুন

  • সাতক্ষীরায় নব-নির্মিত পরিবার পরিকল্পনা ভবনের উদ্বোধন
  • ভোমরা বন্দরে ভারতীয় পাথরের ওজনে কম আমদানীর অভিযোগ
  • চকলেটে প্রাণ গেলো শিশু জান্নাতের!
  • আশাশুনির প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যানকে নিয়ে মিথ্যেচারকারির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি
  • অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের ইন্তেকাল: সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের শোক
  • অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এঁর মৃত্যুতে এমপি রবি’র গভীর শোক
  • সাতক্ষীরায় প্রাণসায়ের খালের বাঁধ অপসারণের দাবিতে পানিবন্দি মানুষের মানববন্ধন
  • সাতক্ষীরায় জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মতবিনিময় সভা
  • কল্পনা নয় ধারনা নয়, বাস্তব
  • সাতক্ষীরায় বিয়ের দাওয়াতে এসে ১৫ বছর পর মাকে খুঁজে পেলেন ছেলে!
  • কলারোয়ায় গ্রীষ্মকালীন টমেটো ক্ষেত পরিদর্শনে ঊর্দ্ধতন কৃষি কর্মকর্তারা
  • পাটকেলঘাটায় প্রকাশ্যে মাদক ব্যবসায়ীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী!