শনিবার, এপ্রিল ১, ২০২৩

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনের বিরুদ্ধে ২০টি রাজ্য মামলা করছে

যুক্তরাষ্ট্রে টেক্সাসের নেতৃত্বে ২০ টি রাজ্যের একটি জোট বাইডেন প্রশাসনের অভিবাসন নীতির বিরুদ্ধে মামলা করছে।

বাইডেনের এই অভিবাসন নীতি আগামী দুই বছরের জন্য প্রতি মাসে ৩০ হাজার অভিবাসীকে যুক্তরাষ্ট্রে আইনিভাবে প্রবেশের অনুমতি দেবে। প্রোগ্রামটি ২০২৪ সালের মধ্যে ৭ লাখ ২০ হাজার অভিবাসীকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে আসবে। টেক্সাসের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্টে টেক্সাস ও আমেরিকা ফার্স্ট লিগ্যালের দায়ের করা মামলায় আরও ১৯ টি রাজ্য যোগ দিয়েছে।

তারা বাইডেন প্রশাসনের এই প্যারোল প্রোগ্রামকে আটকে দিতে চাইছে। টেক্সাসের সাথে মামলায় যোগদানকারী রাজ্যগুলো হলো : আলাবামা, আলাস্কা, আরকানসাস, ফ্লোরিডা, আইডাহো, আইওয়া, কানসাস, কেনটাকি, লুইজিয়ানা, মিসিসিপি, মিসৌরি, মন্টানা, নেব্রাস্কা, ওহিও, দক্ষিণ ক্যারোলিনা, টেনেসি, উটাহ, পশ্চিম ভার্জিনিয়া ও ওয়াইমিং। ২৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টেক্সাসের অ্যাটর্নি জেনারেল কেন প্যাক্সটন যুক্তি দেখান, প্রোগ্রামটি ‘অবৈধভাবে কয়েক হাজার অভিবাসীর নাগরিকত্বের জন্য একটি বাস্তব পথ তৈরি করে।’প্যাক্সটন আরও বলেন, টেক্সাস অবৈধ অভিবাসন কমাতে লড়াই করছে এবং বাইডেনের নীতি এ বিষয়টিকে আরও জটিল করছে। প্যাক্সটন বলেন, ‘আমেরিকার প্রতিটি রাজ্য বিশেষ করে টেক্সাসের মতো সীমান্ত রাজ্য অবৈধ অভিবাসনের প্রভাবে পিষ্ট হচ্ছে। ‘বাইডেন ওপেন বর্ডার অ্যাজেন্ডা’ একটি মানবিক সংকট তৈরি করেছে যা আমাদের রাস্তায় অপরাধ ও সহিংসতা বৃদ্ধি করছে, স্থানীয় সম্প্রদায়কে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে এবং সংকটকে আরও খারাপ করছে।’

তিনি বলেন, ‘এই বেআইনি সাধারণ ক্ষমা কর্মসূচি প্রতি বছর কয়েক হাজার অভিবাসীকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমন্ত্রণ জানাবে এবং অভিবাসন সংকটকে আরও খারাপ করে তুলবে।’বাইডেন অবৈধ অভিবাসন কমাতে সহায়তা করার জন্য নীতিটি চালু করেন। সাম্প্রতিক কিছু প্রতিক্রিয়া সত্ত্বেও বাইডেন প্রশাসন বিশ্বাস করে যে নীতিটি দেশের জন্য উপকার বয়ে আনবে।

কিউবা, হাইতি, নিকারাগুয়া ও ভেনেজুয়েলা এই চারটি দেশকে সহায়তা করাই এই প্যারোল প্রোগ্রামের লক্ষ্য। এর ফলে সীমান্তে এই চারটি দেশ থেকে আসা অভিবাসীদের ধড়পাকড় ডিসেম্বর থেকে ৯৭ শতাংশ কমে গেছে। ডিসেম্বরের শুরুতে এসব দেশ থেকে আসা অভিবাসী ধরপাকড়ের গড় সংখ্যা ছিল প্রতিদিন ৩ হাজার ৩৬৭। এখন তা কমে হয়েছে ১১৫।

অবৈধ অভিবাসন হ্রাস সত্ত্বেও রিপাবলিকান অধ্যুষিত রাজ্যগুলো আর অভিবাসীদের গ্রহণ করতে আগ্রহী নয় এবং এটি সম্পর্কে আপত্তি জানাচ্ছে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

মেক্সিকোর অভিবাসন কেন্দ্রে ভয়াবহ আগুন! ৩৭ জনের মৃত্যু

মেক্সিকোর উত্তর সীমান্ত শহর সিউদাদ জুয়ারেজের একটি অভিবাসন কেন্দ্রে আগুন লেগে অন্ততবিস্তারিত পড়ুন

যুক্তরাষ্ট্রে এক স্কুলে গুলি! তিন শিশু, নারীসহ নিহত- ৭

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ন্যাশভিল শহরের একটি স্কুলে প্রাক্তন ছাত্রের গুলিবর্ষণের ঘটনায় তিনবিস্তারিত পড়ুন

নর্থ-সাইপ্রাস বাংলাদেশ কমিউনিটির মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

“দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ ও সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে লাখো শহিদের জীবনেরবিস্তারিত পড়ুন

  • হিন্দুরা রাখছে রোজা, মুসলিমরা করছে উপবাস সৌহার্দ্য আর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির
  • সুপেয় পানি পাচ্ছে না বিশ্বের ২৩০ কোটি মানুষ
  • আমি খুশি, আমার সন্তানেরা টিকটক ব্যবহার করতে পারে না : ট্রুডো
  • রোমানিয়া সীমান্তে ট্রাকে মিলল ২৩ বাংলাদেশি
  • কুয়েতে তেলের পাইপ লাইনে ছিদ্র! এলাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা
  • বাংলাদেশি কমিউনিটি ইন সাইপ্রাসের ২০২৩ নতুন কমিটি ঘোষণা
  • ইমরানকে ভয় পাচ্ছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী?
  • তুরস্কে ভূমিকম্প দুর্গত এলাকায় বন্যা, প্রাণহানি ১৪ জনের
  • ইসরায়েলে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ
  • পার্লামেন্ট ভাষণে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলেন এমপি
  • ইউক্রেন এই বছরই যুদ্ধ শেষ করতে চায় : কিয়েভ
  • শি জিনপিং তৃতীয় মেয়াদে চীনের প্রেসিডেন্ট হলেন
  • error: Content is protected !!