বুধবার, আগস্ট ৪, ২০২১

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

ইসলামের আলোকে মহামারির কারণ ও বাঁচার উপায়

কোভিড-১৯ বর্তমান বিশ্বে মহামারী হিসেবে ব্যাপক ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। super power রাস্ট্রগুলোও রীতিমত অসহায় হয়ে পড়েছে। Medical science এখনো পর্যন্ত চুড়ান্ত কোনো সামাধান বের করতে পারেনি। কি যেন এক অদৃশ্য শক্তি বিনা যুদ্ধে সমগ্র পৃথিবীরকে তছনছ করে দিচ্ছে। বিশ্বে এটির আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮৭ লাখের বেশী এবং মৃতের সংখ্যা প্রায় ৪ লক্ষ ৬৫ হাজার। বাংলাদেশে এর আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১লক্ষ ১০ হাজার ছাড়িয়েছে এবং মৃতের সংখ্যা সাড়ে ১৪ হাজার ছুঁইছুঁই।

আমরা করোনা থেকে বাঁচতে নিত্যনতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করছি। কিন্তু ধর্মীয় বিষয়ে এতটা উদাসীন যে আমরা সামান্য চিন্তাও করছি না কেন এ মহামারী সৃষ্টিকর্তা আমাদের উপর চাপিয়ে দিয়েছেন।

মহামারীর কারণ : আল্লাহ তা’লা পবিত্র কুরআনে ঘোষণা করেছেন “জলে এবং স্থলে যে বিপর্যয় (মহামারী) নেমে আসে তা তোমাদের কৃতকর্মের ফল।(সুরা রুমঃ৪১)
সুতরাং ইসলামি দৃষ্টিকোন থেকে বিশ্লেষণ করলে করোনা ভাইরাসের কিছু কারণ লক্ষ্য করা যায়। তার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি আলোচনা করব।

১. আল্লাহর নাফরমানী চুড়ান্ত পর্যায়ে পৌছালেঃ

মানুষ যখন নাফরমানীতে লিপ্ত হতে হতে পাপের সীমা ছাড়িয়ে ফেলে তখন আল্লাহ গজব নাজিল করেন। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ পাক ঘোষণা করেছেন “অতঃপর তারা আল্লাহর নেয়ামতসমুহ অস্বীকার করলো। তখন আল্লাহ তাদের কৃতকর্মের শাস্তি দিলেন এভাবে যে, ক্ষুধা ও ভীতি তাদের গ্রাস করলো” (সুরা নাহলঃ১১২)।

আজকে আমরা পাপের তোয়াক্কা না করে বিভিন্ন ধরনের গুনাহের কাজে জড়িয়ে পড়ছি। আল্লাহকে বেমালুম ভুলে গিয়ে তার নেয়ামতের শুকরিয়া আদায় না করে তার সাথে নাফরমানীতে লিপ্ত হচ্ছি।

এ নাফরমানীর সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছিল আস জাতি। তাদের ভেতর প্রথম নাস্তিকতার প্রভাব পরিলক্ষিত হয়। তারা শৈল্পিক কাজে এতোটাই পারদর্শী ছিল যে তারা পাহাড় কেটে একটি সভ্যতা তৈরি করে। তার ভেতর অট্টালিকা, পার্ক, সুইমিংপুল সুনিপুণভাবে তৈরি করে। তারা এতটায় অহংকারী হয়ে যায় যে তারা আল্লাহর অস্তিত্বকে, তার শক্তিকে অস্বীকার করে বসে। এমনকি তাদের নবী হুদ (আঃ) তাদেরকে আল্লাহর দিকে আহ্বান করলে তারা অহংকার বসত তুচ্ছতাচ্ছিল্য করতে থাকে।

ফলে আল্লাহ তাদের উপর গজব নাজিল করেন। তাদের উপর ঘূর্ণিঝড় দিয়ে (একটানা সাত রাত আট দিন) চুড়ান্ত ভাবে ধ্বংস করে দেন। তাদের ধ্বংসাবশেষ এখনো ইয়েমেনে পাওয়া যায়।

২. অশ্লীলতা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লেঃ

রাসুলুল্লাহ (সঃ) বলেছেন যখন কোনো সমাজে অশ্লীলতা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে আল্লাহ তখন মহামারী পাঠান। (ইবনে মাযাহ)।

বর্তমানে অশ্লীলতা, যিনা, ব্যভিচার, ধর্ষণ বিশ্বব্যাপী মহামারীর ন্যায় ছড়িয়ে পড়েছে। পশ্চিমা সভ্যতা অনুকরণের ফলে আমাদের দেশেও এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। ইন্টারনেট ও বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে অশ্লীলতাকে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে যা ইসলামের কঠিনতম হারাম ও কবিরা গুনাহ।

আল্লাহ পাক বলেন “যারা (অশ্লীলতার প্রচার করে) এবং চায় ঈমানদারদের মাঝে ব্যাভিচারের প্রসার ঘটুক তাদের জন্য রয়েছে দুনিয়া এবং আখিরাতে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি” (সুরা নুরঃ১৯)।

অশ্লীলতা আজ সহজলভ্য হওয়ায় ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা সহজে Affected হয়ে পড়ছে এবং জিনা ব্যভিচার ধর্ষণ পরকিয়া সমকামিতার মত সামাজিক অপরাধে মানুষ জড়িয়ে পড়ছে।

অশ্লীলতার চরম সীমানা অতিক্রম করে সামুদ জাতি। পৃথিবীতে তারা সর্বপ্রথম homosexuality প্রচলন করে। তাদের নবী হযরত লুত (আঃ) এ গর্হিত কাজ থেকে ফিরে আসার আহ্বান করলে তারা তাকে বিভিন্নভাবে অত্যাচার শুরু করে। ফলে আল্লাহ ভূমিকম্প দিয়ে তাদের পৃথিবী থেকে ধ্বংস করে দেন। জায়গাটি বর্তমানে জর্ডানের মৃত সাগর নামে পরিচিত।

৩. বিধর্মীদের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বিষয় অনুস্মরণের ফলেঃ

অমুসলিম প্রতিবেশী থাকলে তাদের সাথে ভাল ব্যবহার করা, অসচ্ছল হলে সাহায্য করা, অসুস্থ হলে সেবা করা; হাদিসে উৎসাহ প্রদান করা হয়েছে। এর বাস্তব চর্চা করোনা মহামারিতে দেখতে পেয়েছি। ভাইরাসে নিহত অমুসলিমদের নিজ গৌত্রের কেউ যখন সৎকার করতে এগিয়ে আসেনি, মুসলমান যুবকেরা লাশ সৎকার করেছে। এগুলো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এটি ইসলামের সৌন্দর্য।

কিন্তু ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক কোনো বিষয়ে একজন মুসলিম কোনো অন্য ধর্মাবলম্বীদের অনুস্মরণ করতে পারবে না এটিই আল্লাহর চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত।কারণ ধর্ম হিসেবে ইসলাম পরিপূর্ণ অন্য কোনো ধর্মের অনুস্মরণের (মুসলমানদের) প্রয়োজন নেই।

আল্লাহ তা’লা ঘোষণা করেছেন “আজ আমি তোমাদের জন্য দ্বীনকে পরিপূর্ণ করে দিয়েছি আমার নেয়ামত তোমাদের প্রতি সম্পূর্ণ করে দিয়েছি এবং তোমাদের জন্য দ্বীন হিসেবে ইসলামকেই পছন্দ করেছি” (সুরা মায়িদা : ৩)।

আমরা কেন অমুসলিমদের অনুসরণ করতে পারি না সে প্রসংগে আল্লাহ পাক বলেন “তারা (বিধর্মীরা) চায় তারা যেমন কাফের তোমরা তেমনি কাফের হয়ে যাও। যাতে তোমরা এবং তারা সমান সমান হয়ে যাও। (সুরা নিসাঃ৮৯)। বিশ্বাসগত দিক দিয়ে একজন মুসলিম ও একজন অমুসলিম কখনো এক হতে পারে না, তাদের মধ্য রয়েছে আকাশ-পাতাল পার্থক্য। আজকের দিনে বিজাতীয় সৃংস্কৃতি অনুস্মরণ করা খুব সাধারণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তাদের অনুস্মরণের বিষয়ে আমরা যেন অজ্ঞ হয়ে গেছি। মিডিয়ার মাধ্যমে বিধর্মীরা তাদের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বিষয় অতি সূক্ষ্মভাবে আমাদের মাঝে ঢুকিয়ে দিচ্ছে। তাদের রীতি নীতি পোশাক পরিচ্ছেদ, জীবনযাত্রা আমরা অনুস্মরণ করতে শুরু করেছি। অথচ আল্লাহ তারা পবিত্র কুরআনের বিভিন্ন জায়গায় এ বিষয়ে বার বার সতর্ক করেছেন। এবিষয়ে একটি উদাহরণ দিতে চাই। বিধর্মীরা তাদের নাটক সিনেমায় বিবাহের ক্ষেত্রে এক ধর্মের সাথে অন্য ধর্মের মানুষকে বিবাহ করা উৎসাহিত করছে। কিছু মুসলমানের সন্তানেরা এতে উৎসাহিত হয়ে অন্য ধর্মের মানুষের সাথে বিবাহ করছে। মিডিয়ায় প্রভাবে এটিকে দোসের কিছু মনে করছে না। অথচ ইসলামে এটি কঠিনতম হারাম। কুরআন হাদিসের আলোকে এটি কোনো বিবাহ বলে গণ্য হবে না। যদি কোনো মুসলমান এটি করে তবে সারাজীবন তার জিনাহের গুনাহ হতে থাকবে। (বিস্তারিত সুরা বাকারাঃ ২২১, সুরা মুমতাহিনাঃ ১০, সুরা মায়িদাঃ ৫)।

৪. অন্যায়ভাবে হত্যা করা হলেঃ

অন্যায়ভাবে কোনো মানুষকে হত্যা করা ইসলামে গর্হিত অপরাধ। আল্লাহ নিজেই তাদের তিরস্কার করেছেন যারা কোনো নিরাপরাধ মানুষকে হত্যা করে। আল্লাহ বলেন “ধ্বংসাত্নক কোনো কাজ করার জন্য কেউ একটি মানুষকে হত্যা করে সে যেন পৃথিবীর সকল মানুষকে হত্যা করে”।(সুরা মায়িদাঃ ৩২)।

গোটা পৃথিবী জুড়ে আজ যেন মানুষ হত্যার মহা উৎসব চলছে। ফিলিস্তিন, সিরিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান, মায়ানমার, কাশ্মির, ইয়েমেন সহ গোটা বিশ্বব্যাপী নিরাপরাধ মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে।

অসহায় শিশু নারী পুরুষের আত্নচিৎকারে পৃথিবীর আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। যেদিন প্রথম হত্যাকাণ্ড (হাবিল ও কাবিলের মধ্যে) শুরু হয় আল্লাহ সেদিন পৃথিবীতে প্রথম ভূমিকম্প দেন।

মহামারী থেকে বাচার উপায়ঃ

উল্লেখিত কারণগুলো আজ পৃথিবীতে দিবালোকের ন্যায় সত্য নয় কি? যদি সত্য হয়ে থাকে তবে আমাদের উপর গজব আসাটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। এই মহামারী থেকে বাচতে হলে একজন মুসলমান হিসেবে যে কাজগুলো করতে হবে।

  • আল্লাহ আমাদেরকে যে অফুরন্ত নেয়ামত দান করেছেন তার শুকরিয়া আদায় করতে হবে। অহংকার বসত নাস্তিকতা মনোভাব পরিহার করে তার সৃষ্টি নৈপুণ্যতা নিয়ে বেশী বেশী গবেষণা করতে হবে। হৃদয়ে গভীরভাবে তার অস্তিত্বকে অনুভব করতে হবে।
  • যাবতীয় অশ্লীলতাকে পরিহার করতে হবে। সমাজ থেকে যিনা ব্যভিচার ধর্ষণ পতিতাবৃত্তি যেন দূর হয় সেজন্য ব্যক্তি ও রাস্ট্রকে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।
  • অন্য ধর্মের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক কোনো বিষয় অনুস্মরণ থেকে বিরত থাকতে হবে। নিজ ধর্ম সম্পর্কে জানতে হবে এবং যাবতীয় বিষয়ে অনুশীলন করার অভ্যাস করতে হবে।
  • পৃথিবীব্যাপী যেন নিরাপরাধ মানুষ হত্যা বন্ধ হয় সেজন্য প্রত্যেকের অবস্থান থেকে প্রতিবাদ ও ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সক্ষম না হলে মন থেকে ঘৃণা করতে হবে।

সর্বপরি, আল্লাহ তা’লা কেন আমাদের উপর এ মহামারী দিয়েছেন তার কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা করি। আল্লাহ সর্বশক্তিমান একমাত্র তিনিই পারেন এ গজবের হাত থেকে রক্ষা করতে। আমাদের কৃতকর্মের জন্য কায়মনোবাক্যে তার কাছে ক্ষমা চাই। বলি হে আল্লাহ! আপনি এ গজব পৃথিবী থেকে উঠিয়ে নিন। আপনি আমাদের রক্ষা করুন। ইউনুস (আঃ) এর উম্মতদের কৃতকর্মের জন্য গজব নাজিল করেছিলেন কিন্তু তারা ভুল বুঝতে পারায় কায়মনোবাক্যে আপনার কাছে প্রর্থনা করে। আপনিই তো নিশ্চিত গজবের হাত থেকে তাদের রক্ষা করেছিলেন। আপনি আমাদেরকে হেফাজত করুন। আমিন। রেফারেন্স : * কুরআন মাজিদ, * বিভিন্ন হাদিস গ্রন্থ, * কুরআনে বর্ণিত ২৫জন নবী ও রাসুল, * দৈনিক যুগান্তর ১৮/০৩/২০, * দৈনিক কালের কন্ঠ ২৪/০২/১৭।

লেখক
গাজী সাইফুল্লাহ আযমী
এল এল,বি (অনার্স) এল এল,এম
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া।
E-mail: [email protected]

একই রকম সংবাদ সমূহ

মৃত্যুর ৪ বছর পর যশোর জেলা আ.লীগের কমিটিতে পদ!

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে শুক্রবার (৩০ জুলাই)বিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় পাট জাকের পানি অন্যের পুকুরে যাওয়ায় স্বামী-স্ত্রী জখম

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পুকুরে পাট জাক দেয়া পানি অন্যের পুকুরে যাওয়াকে কেন্দ্র করেবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় মোবাইল কোর্টের অভিযানে ৩টি মামলায় আর্থিকদন্ড

কলারোয়ায় মোবাইল কোর্টে অভিযান চালিয়ে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করার অপরাধে ৩টি মামলায়বিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
  • কলারোয়ায় শিক্ষক আব্দুল ওহাবের মৃত্যুতে মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির শোক
  • কলারোয়া আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড’র উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
  • কলারোয়ার সবার প্রিয় শিক্ষক আব্দুল ওহাব সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন
  • কলারোয়া পৌরসভায় করোনায় কর্মহীন-অসহায়দের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ
  • কলারোয়ায় দারুল উলুম এতিমখানা ও মাদরাসার শিশুদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ
  • কলারোয়ায় ২ ব্যক্তির করোনা পজিটিভ ও শনাক্তের হার- ১১ ভাগ
  • কলারোয়ায় বঙ্গবন্ধু’র শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যে আ’লীগের প্রস্তুতিমূলক সভা
  • কলারোয়ায় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করায় ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা
  • কলারোয়ায় এক গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা, থানায় অভিযোগ
  • কলারোয়া সীমান্তে ৪ কেজি গাঁজাসহ দুই যুবক আটক
  • কলারোয়ার এবি পার্ক থেকে আবারো এক জোড়া কপোত-কপোতী আটক
  • error: Content is protected !!