সোমবার, এপ্রিল ১২, ২০২১

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

কলারোয়ায় গাছে গাছে পেরেক ঠুকে নির্বাচনী বিলবোর্ড

গাছ মানুষের পরম বন্ধু। গাছ যেমন পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে, তেমনি আর্থিকভাবেও উপকার করে। কিন্তু আমরা গাছের সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করে থাকি। প্রয়োজনে– অপ্রয়োজনে গাছকে হত্যা করার অলিখিত প্রতিযোগিতা চলছে যেন সর্বত্র। এ রকমই এক প্রতযোগিতা চলছে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় বিভিন্ন ইউনিয়নে।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের অধিনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন তফশীল অনুযায়ী প্রথম ধাপে ৩৪২টি ইউনিয়নের নির্বাচন আগামী ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে।
এর মধ্যে কলারোয়া উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ঐ একই তারিখে অনুষ্ঠিত হবে। ৩ই মার্চ তফশীল ঘোষনা হলেও আসান্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সড়কের পাশে সরকারী গাছে গাছে ঝুলছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীদের প্রচার-প্রচারণার অসংখ্য সাইনবোর্ড-ব্যানার-ফেস্টুন ও বিজ্ঞাপন। এসব ব্যানার, ফেস্টুন, বিজ্ঞাপন ঝোলানো হয়েছে পেরেক ঠুকে। একেকটি গাছ যেন একেকটি বিজ্ঞাপন বোর্ড। এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এভাবে গাছে পেরেক ঠুকা হচ্ছে, অথচ তা দেখার কেউ নেই। আসলে কারও এ বিষয়ে কোনো মাথাব্যথাই নেই।

সাইনবোর্ড-ব্যানার-ফেস্টুন ও বিজ্ঞাপনে এমনভাবে ছেয়ে গেছে যে কোনটা কোন গাছ, তা আর চেনার উপায় থাকে না। এটা খুবই বিপজ্জনক একটি ব্যাপার।

পরিবেশবিদদের মতে, পেরেক লাগানোর কারণে গাছের গায়ে যে ছিদ্র হয়, তা দিয়ে পানি ও এর সঙ্গে বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া ও অণুজীব ঢোকে। এতে গাছের ওই জায়গায় দ্রæত পচন ধরে। ফলে তার খাদ্য ও পানি শোষণ প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়। এতে গাছ মারাও যেতে পারে। তাই কোনো গাছে পেরেক ঠোকা মানে ওই গাছের চরম ক্ষতি করা। যেখানে আমাদের বেশি করে গাছ লাগানো এবং গাছের পরিচর্যা করা প্রয়োজন, সেখানে আমরা উল্টো গাছের ক্ষতি করে চলেছি।

উপজেলা বন ও পরিবেশে বিভাগের কর্মকর্তা মুহাম্মদ ও শামছুর রহমান বলেন এভাবে রাজনৈতিক দলের প্রচার প্রচারণা গাছ ব্যবহার করা বন্ধ করতে হবে। একান্ত প্রয়োজন দেখা দিলে গাছের গায়ে তার বা রশি দিয়ে তা বেঁধে ব্যানার, ফেস্টুন লাগানো যেতে পারে। কোনোভাবেই পেরেক ঠোকা চলবে না।

তারা আরো বলেন, গাছে পেরেক ঠুকে সাইনবোর্ড না লাগানোর বিষয়ে ২০০২ সালের ৭ জুলাই জাতীয় সংসদে একটি আইন পাস হয়।এটা একটি অপরাধ। এছাড়া উপজেলার নাগরিক কমিটির সদস্য জাকির হোসেন বালেন, শুধু কাগজপত্রেই আইনটি আছে। বাস্তবে এর কোনো প্রয়োগ নেই। এই আইনটি সম্পর্কে সবাইকে জানাতে হবে এবং এর প্রয়োগ ঘটাতে হবে। পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টিতে উদ্যোগ নিতে হবে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ায় মানব উন্নয়ন সংস্থার মাস্ক বিতরণ

করোনা সংক্রমণ থেকে নিরাপদ রাখতে কলারোয়ায় ৫ শতাদিক মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় ছাত্রলীগ কর্মীদের মাস্ক বিতরণ

কলারোয়ায় করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার (১২ এপ্রিল) সকালেবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় দারিদ্র্য বিমোচনে ১৮জনকে সাড়ে ৪লাখ টাকার ঋণ প্রদান

কলারোয়ায় বিআরডিবি’র আওতায় সমন্বিত দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসুচীর ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। সোমবারবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় করোনার ২য় ডোজের চতুর্থ দিনে ১৪৭ জনের টিকা গ্রহণ
  • কলারোয়ায় টিউবওয়েলে পানি না ওঠায় অসহনীয় দুর্ভোগ
  • কলারোয়ায় ‘সেবা’র দাফন ও সৎকার টিমের সদস্যদের প্রশিক্ষণ
  • কলারোয়ার কেঁড়াগাছিতে মাঠে মাঠে দোল খাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন
  • কলারোয়ায় ১ কেজি গাঁজাসহ ১ জন গ্রেপ্তার
  • কলারোয়ায় ফেন্সিডিলসহ দুই নারী ও এক পুরুষ আটক
  • চোরাচালান ঠেকাতে সীমান্তে স্মার্ট ডিজিটাল সিস্টেম
  • কলারোয়ার গাছে গাছে উঁকি আমের গুটির, বাতাসে দুলছে স্বপ্ন আম চাষীর
  • কলারোয়ায় ওসি, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ অনেকে নিলেন করোনার ২য় ডোজের টিকা
  • কলারোয়ার বালিয়াডাঙ্গা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে কয়েকটি দোকান পুড়ে ছাই
  • কলারোয়ায় সীমান্ত প্রেসক্লাবের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ
  • কলারোয়ায় পাঁচ বছরের শিশুকে বলাৎকার!
  • error: Content is protected !!