মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

ছেলেধরা গুজবে পিটিয়ে হত্যার তদন্ত আটকে গেছে করোনায়

রাজধানীর বাড্ডায় ছেলেধরা গুজবে তাসলিমা বেগম রেনু (৪০) নামের এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলার তদন্ত এক বছরেও শেষ হয়নি। তদন্ত কর্মকর্তা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে মামলার তদন্তকাজ এগোয়নি।

গত বছরের এই দিনে তাসলিমা চার বছরের মেয়ের ভর্তির বিষয়ে খোঁজ নিতে উত্তর-পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান। সে সময় ছেলেধরা সন্দেহে লোকজন তাঁকে পিটিয়ে হত্যা করে। এই ঘটনায় তাঁর ভাগনে সৈয়দ নাসির উদ্দিন অজ্ঞাতনামা ৪০০-৫০০ ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে তাসলিমার স্বজনেরা বলছেন, মামলাটি যে অবস্থায় ছিল, এখনো সেই অবস্থায় আছে। নতুন কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

তাসলিমা হত্যা মামলার তদন্ত কোন পর্যায়ে আছে, তা জানতে চাইলে গত শনিবার রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) প্রধান মো. আবদুল বাতেন বলেন, এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। তিনি এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন। জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক আবদুল হক বলেন, করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর মামলার তদন্ত নিয়ে কাজ করতে পারেননি। ঈদুল আজহার পর জোরেশোরে মামলার তদন্ত নিয়ে নামবেন।

গত বছরের নভেম্বরে ডিবি তাসলিমা হত্যা মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায়। সে সময় তদন্তসংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা বলেছিলেন, ভিডিও ফুটেজ ও স্থিরচিত্র বিশ্লেষণ করে তাসলিমা হত্যায় অন্তত ৫০ জন নারী-পুরুষের জড়িত থাকার তথ্য পেয়েছেন তাঁরা। তবে গত শনিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, সেদিনের ভিডিও ফুটেজ ও স্থিরচিত্রে ঘটনাস্থলে অনেককেই দেখা গেছে। কিন্তু এতে সবার জড়িত থাকার তথ্য-প্রমাণ মেলেনি। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা গেছে। মামলার বাদী সৈয়দ নাসির উদ্দিন বলেন, তদন্ত নিয়ে তাঁরা হতাশ। বাড্ডা থানা মামলাটি তদন্তের সময় ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। তাঁদের মধ্যে পাঁচজন জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

এখনো মায়ের অপেক্ষায় তুবা
তাসলিমার মেয়ে তাসমিন মাহিরা তুবার বয়স এখন পাঁচ বছর। সে এবার শিশু শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছে। আর ছেলে তাহসিন আল মাহির পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। দুজনই থাকে বড় খালা জয়নব বেগমের মহাখালীর বাসায়। জয়নব বেগম বলেন, ছোট্ট তুবাকে তার মায়ের মৃত্যুর খবর এখনো জানানো হয়নি। মায়ের জন্য তার কান্না থামে না। প্রতিরাতেই ঘুমাতে গেলে সে মায়ের জন্য বিলাপ করে বলে, ‘মা আমার জন্য কেন জামা নিয়ে আসছে না। মাকে ছাড়া আমি ঘুমাব না।’ তখন তাকে বলা হয়, তার মা তার মামার সঙ্গে আমেরিকায় আছেন। সেখান থেকে তাঁরা শিগগির ফিরে আসবেন। মায়ের জন্য মাহিরও মনমরা হয়ে থাকে।
সুত্র প্রথম আলো

একই রকম সংবাদ সমূহ

ঈদযাত্রায় ঝুঁকিপূর্ণ ট্রাক ও বাসের ছাদে যাত্রী নেওয়া যাবে না

হাইওয়ে পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি শাহাবুদ্দিন খান বলেছেন, যাত্রীদের কাছে অনুরোধ ঝুঁকিপূর্ণবিস্তারিত পড়ুন

এই বিজয় বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজয় : মোদি

লোকসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল করতে না পারলেওবিস্তারিত পড়ুন

সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দুই ভাইস চেয়ারম্যান শামস্ ও কোহিনুর

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যেবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় বিশ্ব ‘মা’ দিবসে মাকে মমতায় স্মরণ
  • রাজগঞ্জে ইঁদুর মারার বিষ খেয়ে এক শিশুর মৃত্যু, চিকিৎসাধীন আরেক শিশু
  • নড়াইলে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত- ২
  • কলারোয়ার ধানদিয়া ইউনিয়ন ইনষ্টিটিউশনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
  • জাতীয় শিশু পুরস্কার পেলেন সাতক্ষীরার মেয়ে নূনসাকিন বিনতে জামান (হৃদিতা)
  • রাজধানীর বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬, শঙ্কামুক্ত নন দগ্ধরাও
  • জেএসসি-পিইসিই পরীক্ষার তথ্যটি বানোয়াট : শিক্ষা মন্ত্রণালয়
  • প্রধানমন্ত্রী বিদেশি নিষেধাজ্ঞা নিয়ে চিন্তিত নন : ওবায়দুল কাদের
  • কলারোয়ায় নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার ঘোষনা দিলেন লাল্টুসহ তার সমর্থিত নেতাকর্মীরা
  • শেখ হাসিনা পুনরায় সরকার গঠনের পথে : ইকোনমিস্টের নিবন্ধ
  • শ‌রিক দলকে স্বতন্ত্রদের সঙ্গে প্রতিযো‌গিতা ক‌রতে হবে : তথ্যমন্ত্রী
  • মনিরামপুরের রাজগঞ্জে রেসার উদ্যোগে কম্বল বিতরন