রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

ছেলেধরা গুজবে পিটিয়ে হত্যার তদন্ত আটকে গেছে করোনায়

রাজধানীর বাড্ডায় ছেলেধরা গুজবে তাসলিমা বেগম রেনু (৪০) নামের এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলার তদন্ত এক বছরেও শেষ হয়নি। তদন্ত কর্মকর্তা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে মামলার তদন্তকাজ এগোয়নি।

গত বছরের এই দিনে তাসলিমা চার বছরের মেয়ের ভর্তির বিষয়ে খোঁজ নিতে উত্তর-পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান। সে সময় ছেলেধরা সন্দেহে লোকজন তাঁকে পিটিয়ে হত্যা করে। এই ঘটনায় তাঁর ভাগনে সৈয়দ নাসির উদ্দিন অজ্ঞাতনামা ৪০০-৫০০ ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে তাসলিমার স্বজনেরা বলছেন, মামলাটি যে অবস্থায় ছিল, এখনো সেই অবস্থায় আছে। নতুন কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

তাসলিমা হত্যা মামলার তদন্ত কোন পর্যায়ে আছে, তা জানতে চাইলে গত শনিবার রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) প্রধান মো. আবদুল বাতেন বলেন, এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। তিনি এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন। জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক আবদুল হক বলেন, করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর মামলার তদন্ত নিয়ে কাজ করতে পারেননি। ঈদুল আজহার পর জোরেশোরে মামলার তদন্ত নিয়ে নামবেন।

গত বছরের নভেম্বরে ডিবি তাসলিমা হত্যা মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায়। সে সময় তদন্তসংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা বলেছিলেন, ভিডিও ফুটেজ ও স্থিরচিত্র বিশ্লেষণ করে তাসলিমা হত্যায় অন্তত ৫০ জন নারী-পুরুষের জড়িত থাকার তথ্য পেয়েছেন তাঁরা। তবে গত শনিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, সেদিনের ভিডিও ফুটেজ ও স্থিরচিত্রে ঘটনাস্থলে অনেককেই দেখা গেছে। কিন্তু এতে সবার জড়িত থাকার তথ্য-প্রমাণ মেলেনি। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা গেছে। মামলার বাদী সৈয়দ নাসির উদ্দিন বলেন, তদন্ত নিয়ে তাঁরা হতাশ। বাড্ডা থানা মামলাটি তদন্তের সময় ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। তাঁদের মধ্যে পাঁচজন জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

এখনো মায়ের অপেক্ষায় তুবা
তাসলিমার মেয়ে তাসমিন মাহিরা তুবার বয়স এখন পাঁচ বছর। সে এবার শিশু শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছে। আর ছেলে তাহসিন আল মাহির পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। দুজনই থাকে বড় খালা জয়নব বেগমের মহাখালীর বাসায়। জয়নব বেগম বলেন, ছোট্ট তুবাকে তার মায়ের মৃত্যুর খবর এখনো জানানো হয়নি। মায়ের জন্য তার কান্না থামে না। প্রতিরাতেই ঘুমাতে গেলে সে মায়ের জন্য বিলাপ করে বলে, ‘মা আমার জন্য কেন জামা নিয়ে আসছে না। মাকে ছাড়া আমি ঘুমাব না।’ তখন তাকে বলা হয়, তার মা তার মামার সঙ্গে আমেরিকায় আছেন। সেখান থেকে তাঁরা শিগগির ফিরে আসবেন। মায়ের জন্য মাহিরও মনমরা হয়ে থাকে।
সুত্র প্রথম আলো

একই রকম সংবাদ সমূহ

কেশবপুরে আইন অমান্য করে জমি দখল

কেশবপুরে পৌর আইন অমান্য করে জমি জবর দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায়বিস্তারিত পড়ুন

কালীগঞ্জে মানবেতর জীবনযাপন করছে অসহায় কালাম

দিনমজুর কালাম (৫৫) ব্রেন স্টোক করে হঠাৎ মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। তারবিস্তারিত পড়ুন

এবার ক্ষমতায় এলে কাগজে-কলমে দেশ বিক্রি করে দেবে: রিজভী

ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকার আরেকবার ক্ষমতায় আসলে একেবারে কাগজে-কলমে দেশ বিক্রি করে দিবেবিস্তারিত পড়ুন

  • মণিরামপুরে শিশু অপহরণের অভিযোগে তিনজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা
  • নড়াইলে বাইরে যেতে পারছে না লাঞ্ছিত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসের তিন কন্যা!
  • শীতাকুন্ডু সফর শেষে তথ্যমন্ত্রী, এটি নিছক দুর্ঘটনা কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে
  • চট্টগ্রামে কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড : ১৩ ঘণ্টা পরও জ্বলছে আগুন
  • আগামী বছর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন
  • গাইবান্দায় ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা চালক নিহত
  • কৃষকদের অগ্রাধিকার দিয়েই কাজ করে যাচ্ছে সরকার : পানি সম্পদ উপমন্ত্রী
  • মণিরামপুরে মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও ইফতার মাহফিলে প্রতিমন্ত্রী স্বপন
  • সাতক্ষীরায় শ্বশুর কর্তৃক জামাতার নামে একাধিক মামলা দায়েরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
  • ৭১’এ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে বাঘের খাঁচায় ছেড়ে দেয় পাকিস্থানি সেনারা
  • কবি, ও গবেষক নাজমীন মর্তুজা’র জন্মদিন আজ
  • কলারোয়ায় পান চাষীদের স্বস্তির নিঃশ্বাস
  • error: Content is protected !!