কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

নড়াইলে অনলাইনের চেয়ে গোহাটে ক্রেতা-বিক্রেতা বেশি

কোরবানির জন্য প্রস্তুত ২৯ হাজারের বেশি পশু
নড়াইলে কোরবানির জন্য ২৯ হাজার ৫৩২টি হাজার গরু ও ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে। গৃস্থালি থেকে শুরু করে খামারিরা এসব গরু-ছাগল লালন-পালন করেছেন। ইতোমধ্যে জেলার তিনটি উপজেলার আটটি হাটে কোরবানির পশু বেচাকেনা শুরু হয়েছে।

এদিকে, করোনা সংকটের কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনা করে ‘নড়াইল কোরবানির হাট’ নামে মোবাইল অ্যাপ ও ওয়েবসাইটেরও উদ্বোধন করা হয়েছে। তবে অনলাইনে কেনাবেচার চেয়ে হাটে ক্রেতা-বিক্রেতা বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সদরের নাকসী মাদরাসা, মাইজপাড়া, কালিয়ার পহরডাঙ্গাসহ বিভিন্ন পশুহাটে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ক্রেতা-বিক্রেতারা বলছেন, অনলাইন পদ্ধতিতে গরু-ছাগল বেচাকেনা করে তারা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন না। কারণ, এ পদ্ধতিতে আকার, আকৃতি, সুস্থতাসহ বিভিন্ন বিষয় স্বচোক্ষে দেখা যায় না। কোরবানির পশু সরাসরি দেখেশুনে কেনার অনুভূতিটাই অন্যরকম। তবুও করোনাকালে স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনা করে কেউ কেউ ঝুঁকছেন অনলাইনের দিকে।

জেলা প্রশাসন ও প্রাণিসম্পদ অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর নড়াইলে কোরবানির হাটে বিক্রি জন্য ২৯ হাজার ৫৩২টি গরু এবং ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৮ হাজার ৮০১টি গরু এবং ১০ হাজার ৭৩১টি ছাগল ও ভেড়া রয়েছে। হাটের পাশাপাশি করোনা সংকটের কারণে ক্রেতাদের ঘরে বসে পশু কিনতে গত ১০ জুলাই বিকেলে ভিডিওকনফারেন্সের মাধ্যমে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি ‘নড়াইল কোরবানির হাট’ নামে একটি মোবাইল অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের উদ্বোধন করেন। হাটের দিকেই ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড় বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যদিও বেচাকেনা এখনো জমে উঠেনি।

এ বছর হাটগুলোতে ৪০ থেকে ৭০ হাজার টাকার গরুর চাহিদা বেশি। এক্ষেত্রে ছাগলের চাহিদা সাত থেকে ১০ হাজার টাকার মধ্যে। ঈদের আগ মুহূর্তে কোরবানির পশুরহাট জমজমাট হয়ে উঠবে, এমন প্রত্যাশা ক্রেতা-বিক্রেতাসহ হাট ইজারাদারদের।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মারুফ হাসান বলেন, নড়াইলে কোরবানির পশুর চাহিদার চেয়ে বেশি গরু-ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে। এ জেলায় ২৪ হাজার ৫০০ পশুর চাহিদা থাকলে ২৯ হাজারের বেশি পশু রয়েছে।
এছাড়া, কোরবানিযোগ্য পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাটগুলোতে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম রয়েছে। করোনাকালে ক্রেতা-বিক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন কিনা, সেদিকেও লক্ষ্য করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, করোনার দুর্যোগময় মুহূর্তে কোরবানির পশু ঘরে থেকেই মোবাইল অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কেনার জন্য সবাইকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে কেউ যাতে প্রতারিত না হন, সেদিকেও কঠোর নজরদারি রয়েছে।

একই রকম সংবাদ সমূহ

ঝিকরগাছায় মুক্তিযোদ্ধার ভাতা আত্মসাৎকারী বিল্লালের টিউবওয়েল দেওয়ার নামে প্রতারণা (পর্ব-২)

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার পানিসারা ইউনিয়নের কুলিয়া গ্রামে নিজের পিতার নাম জালিয়াতি করেবিস্তারিত পড়ুন

শার্শায় প্রশাসনের নাকের ডগায় নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বেকারি খাদ্য

যশোরের শার্শায় প্রশাসনের নাকের ডগায় নোংরা পরিবেশে বেকারি কারখানাতে তৈরি করা হচ্ছেবিস্তারিত পড়ুন

ইসলামী ব্যাংক থেকে চার প্রতিষ্ঠানে ৩৪ হাজার কোটি টাকা ঋণ, অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের

ইসলামী ব্যাংক থেকে এস আলম গ্রুপসহ পৃথক চারটি প্রতিষ্ঠানের নামে ৩৪ হাজারবিস্তারিত পড়ুন

  • সরকার সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী ও আধুনিকায়নে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী
  • তিন দিনের মধ্যে লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে
  • শার্শায় আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ১২ জন আহত
  • বাগআঁচড়ায় ৮দলীয় নকআউট মিনি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত
  • কলারোয়ায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে
  • ঝিকরগাছার শংকরপুরে রাত জেগে গ্রাম পাহারা দিচ্ছে শতাধিক যুবক
  • ব্যাংক ঋণ দিচ্ছে কাদের, জানাতে হবে ওয়েবসাইটে: হাইকোর্ট
  • গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দামের বিষয়ে যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত: প্রতিমন্ত্রী
  • মহান বিজয়ের মাস শুরু
  • ৯৪ বার পেছালো সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন
  • মার্চে উৎপাদনে আসছে দেশের প্রথম বেসরকারি টিএসপি সার প্লান্ট
  • রাজশাহী কারাগারে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির ফাঁসি কার্যকর
  • error: Content is protected !!