সোমবার, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৩

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

করোনার মূল উপসর্গ নিয়ে গোড়াতেই বড় ভুল হয়ে গেছে: গবেষণা

মহামারী করোনাভাইরাস যখন ভারতেপ্রথম থাবা বসাচ্ছিল, তখন বহু সংখ্যক করোনা রোগীকে চিহ্নিতই করা যায়নি। এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন দেশটির বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। তারা বলছেন, বহু করোনা রোগীকে প্রথমে চিহ্নিতই করা যায়নি। কিন্তু কেন! বিশেষজ্ঞদের দাবি, প্রথমে ধরেই নেওয়া হয়েছিল করোনা মানেই রোগীর শরীরে প্রথম উপসর্গ হবে জ্বর।

কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় তা নয়, বহু করোনা রোগীর ক্ষেত্রেই জ্বরের উপসর্গ ছিলই না।
আইসিএমআর এর গবেষণা শাখা ইন্ডিয়ান জার্নাল অব মেডিকেল রিসার্চ সম্প্রতি একটি সমীক্ষা প্রকাশ করেছে। ‘Clinico-demographic profile & hospital outcomes of Covid-19 patients admitted at a tertiary care centre in north India’ শীর্ষক এই সমীক্ষাটি ২৩ মার্চ থেকে ১৫ এপ্রিল টানা চালিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় দিল্লির এইমস হাসপাতালে। বেছে নেওয়া হয়েছিল মোট ১৪৪ জন করোনা রোগীকে।

সমীক্ষার পরিসংখ্যান বিচার করে দেখা যায় মাত্র ১৭ শতাংশ করোনা রোগীর প্রধান উপসর্গ ছিল জ্বর।
চিকিৎসক রণদীপ গুলেরিয়ার নেতৃত্বে হওয়া ওই গবষণায় দেখা যায়, ভারতের করোনা রোগীদের প্রধান উপসর্গের সঙ্গে অন্যান্য দেশের করোনা রোগীদের উপসর্গের ফারাক রয়েছে। চীনের দিকে তাকালে দেখা যাবে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৪৪ শতাংশের শরীরেই জ্বর ছিল। হাসপাতালে ভর্তির পর জ্বর দেখা দেয় ৮৮ শতাংশের শরীরেই। কিন্তু এইমস-এ ভর্তি হওয়া মোট করোনা রোগীদের মধ্যে মাত্র ১৭ শতাংশ রোগীর শরীরে জ্বর ছিল।

৪৪ শতাংশ রোগী ছিলেন উপসর্গহীন।
এই উপসর্গহীনতার পরিসংখ্যান একদিকে যেমন আশাপ্রদ, অন্যদিকে ততটাই ভয়ের। মনে করা হচ্ছে, অনেকে শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলেছে নিজে থেকে, অন্যদিকে এই উপসর্গহীন রোগীরাই বহুক্ষেত্রে নিঃশব্দে অজান্তে সংক্রমণ ছড়িয়ে দিয়েছেন বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। মার্চ-এপ্রিলে এভাবেই সংক্রমিত হয়েছেন কয়েক লাখ মানুষ, ধারণা বিজ্ঞানীদের।

এই ১৪৪ জন রোগীর মধ্যে ৯৩.১ শতাংশ ছিলেন পুরুষ। এদের মধ্যে ১০ শতাংশ ছিলেন বিদেশি পর্যটক। ২৩ জন কোমর্বিডিটিতে আক্রান্ত হন। যাদের শরীরে উপসর্গ ছিল তাদের মধ্যে একটা বেশি অংশই সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন। জ্বর প্রায় ছিল না বললেই চলে। এদের ওপর হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ও অ্যাজিথ্রোমাইসিন প্রয়োগ করেন চিকিৎসকরা।

‌রণদীপ গুলেরিয়া বলছেন, ‌”আসলে প্রতিটা দিনই একটা করে শিক্ষার দিন। করোনা আমাদের চিন্তার থেকেও বেশি পরিকল্পিত আক্রমণ চালায়। এমনও হয়েছে কারও স্ট্রোক হয়েছে বা হার্ট অ্যাটাক। কিন্তু পরে ধরা পড়েছে তিনি করোনা আক্রান্ত। এমনও হয়েছে কনজেনটিভাইটিসে আক্রান্ত রোগীর শরীরে করোনা লুকিয়ে ছিল।” সূত্র: নিউজ১৮

একই রকম সংবাদ সমূহ

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো প্রক্রিয়ায় পরিবর্তনের আভাস

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়ায় বড় ধরনের পরিবর্তনের আভাস দিয়েছেন দেশটিরবিস্তারিত পড়ুন

মালয়েশিয়ায় অবৈধ কর্মীদের বৈধ করা হচ্ছে: মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মালয়েশিয়ায় অবৈধ কর্মীদের একটি প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে বৈধ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেনবিস্তারিত পড়ুন

বাংলাদেশ-পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বৈঠক

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক বাড়ানোর আগ্রহ প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। এক্ষেত্রে একাত্তরে যে গণহত্যাবিস্তারিত পড়ুন

  • যুক্তরাষ্ট্র ইমিগ্রেশনের ২০২৩-২৬ কৌশলগত পরিকল্পনা প্রকাশ
  • যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্ক স্কুল চ্যান্সেরল, মেয়র, ব্রংক্স-ব্রুকলীনে ২ ছাত্র নিহত, অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন
  • যুক্তরাষ্ট্রে ওমর ইলহানের অভিযোগ : কংগ্রেসে মুসলিম প্রতিনিধি চায় না রিপাবলিকান
  • যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বাড়িতে অনুসন্ধান চালিয়েছে এফবিআই : সিএনবিসি
  • সন্দেহভাজন চীনা পর্যবেক্ষণ বেলুন যুক্তরাষ্ট্রের আকাশসীমায়
  • যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনের বিরুদ্ধে ২০টি রাজ্য মামলা করছে
  • আগুন এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে, জরুরি অবতরণ
  • যুক্তরাষ্ট্রসহ তিন মিত্র দেশের নতুন নিষেধাজ্ঞা মিয়ানমার জান্তা সরকারের ওপর
  • বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেওয়ার প্রস্তাব উঠছে আইএমএফ বোর্ডে
  • যুক্তরাষ্ট্রে ১ এপ্রিল থেকে দেড় কোটি মানুষ মেডিকেইড হারাবে
  • যুক্তরাষ্ট্রে ও নজির গড়ল হিন্দি ছবি ‘পাঠান’
  • যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ফের বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত-৩
  • error: Content is protected !!