সোমবার, মার্চ ১, ২০২১

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

নড়াইল থেকে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে শাপলা ফুল!

বাংলাদেশের জাতীয় ফুল শাপলা। যার বাংলা নাম শাপলা, ইংরেজী নাম হল লিলি। মনিপুরী ভাষায় থরো আংগৌবা, তামিল ভাষায় ভেলাম্বাল, সংকৃত ভাষায় কুমুডা, আসাম ভাষায় এই শাপলা ফুলকে নাল বলা হয়। শুধু বাংলাদেশ নয় শ্রীলংকারও জাতীয় ফুল এই শাপলা। শ্রীলংকায় শাপলাকে বলে নীল-মাহানেল। গ্রীক দার্শনিক পে¬টো ও এরিস্টটল এর এক শিষ্য থিউফ্রাস্টাস বলেছেন এটা একটি জলজ উদ্ভিদ যা প্রায় ৩’শ খৃষ্টপূর্ব পুরানো। বাংলাদেশের আবহাওয়ায় সাধারণতো পাঁচ প্রকার শাপলা ফুল দেখা যায়। সাদা, লাল, বেগুণী, হলুদ, নীল রঙ্গের। এর মধ্যে সাদা শাপলা হলো বাংলাদেশের জাতীয় ফুল। বাংলাদেশের গ্রাম গঞ্জের আনাছে কানাছে ডোবায় অহরহ দেখা যেত এই জলে ভাসা ফুল। তবে অযত্ন অবহেলা আর কৃষি জমিতে অধিক পরিমানে কীট নাশক ও রাসয়নিক সার ব্যবহার করার কারণে বাংলাদেশের জাতীয় ফুল শাপলা হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। নড়াইল জেলার উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কিছু সাদা শাপলা দেখা গেলেও লাল, হলুদ, নীল, বেগুণী শাপলা প্রায় হারিয়ে যেতে বসেছে। বর্ষা মৌসুমে বিভিন্ন এলাকায় খাল-বিল জলাশয় ও নিচু জায়গায় পানি জমা থাকলে সেখানেই প্রাকৃতিক ভাবেই জন্ম নেয় আমাদের জাতীয় ফুল শাপলা। কিছু দিন আগেও জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে প্রচুর পরিমানে শাপলা ফুল দেখা যেত। তখন পুকুর খাল বিল ও জলাশয় গুলিতে লাল গোলাপী, সাদা, বেগুণী, নীল ও বিরল প্রজাতির হলুদ শাপলা ফোঁটার কারণে চারিদিকে নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক দৃশ্যে পরিণত হতো । বর্তমানে সাদা প্রজাতির শাপলাগুলি বিভিন্ন জায়গায় দেখা গেলেও দেখা যাচ্ছেনা গোলাপী, বেগুণী, নীল ও হলুদ শাপলা। এসব শাপলা হারিয়ে যাওয়ার পেছনে বিভিন্ন কারণ রয়েছে বলে নানা জনের নানা অভিযোগ রয়েছে। কারো কারো মতে কপোতাক্ষের নাব্যতা হ্রাস খাল বিল ও জলাশয় ভরাট করে কৃষি জমি তৈরী ঘর বাড়ী তৈরী ফসলী জমিতে মাত্রতিরিক্ত কীঠনাশক ব্যবহার এবং জলবায়ু পরিবর্তেনের কারণে আমাদের জাতীয় ফুল শাপলা হারিয়ে যেতে বসেছে। এক সময়ে ঝিলে বিলে পুকুরে বর্ষা মৌসুমে নানা রঙ্গের শাপলার বাহারী রূপ মানুষের নয়ন জুড়িয়ে যেত। শাপলা ছোটদের খুব প্রিয়। শাপলার ড্যাপ বাচ্ছাদের প্রিয় খাদ্য এবং গ্রামের লোকেরা ড্যাপ দিয়ে খই ভেজে মোয়াসহ বিভিন্ন প্রকার সুস্বাদু খাবার তৈরী করে থাকে। গ্রামগঞ্জের মানুষের কাছে সব্জী হিসেবেও খুব জনপ্রিয় এই শাপলা। অনেকে আবার শাপলা তুলে বাজারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বহ করতো। এছাড়া লাল শাপলার অনেক ঔষধি গুন রয়েছে। যেমন শাপলার মোতা খেলে আমাশয়ের মত রোগ ভালো হয় বলে জানা যায়।

একই রকম সংবাদ সমূহ

যে পাখি অর্ধেক পুরুষ আর অর্ধেক নারী!

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে একটি বিরল পাখি দেখা গেছে। পাখিটির নাম নর্দার্ন কার্ডিনাল।বিস্তারিত পড়ুন

শ্বশুর-শাশুড়ির সেবা করলেই উপহার দিচ্ছে পুলিশ

শ্বশুর শাশুড়ির সেবা করলেই উপহার পৌঁছে দিচ্ছেন পুলিশ কর্মকর্তা। এমন ব্যতিক্রম উদ্যোগবিস্তারিত পড়ুন

শুধু মৃতদেহ রাখতে পাঁচতারকা হোটেল!

জাপানের ওসাকার হোটেল রিলেশন বা ‘ইতাই হেতেরু’ হোটেল। পাঁচতারকা এই হোটেলে রাখাবিস্তারিত পড়ুন

  • অদ্ভূত কাণ্ড, স্বামীর গলায় শিকল বেঁধে বের হলেন রাস্তায়!
  • যেসব বলিউড তারকা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন
  • ৭ বছর আগে মারা যাওয়া বাবাকে গুগলে খুঁজে পেলেন সন্তান!
  • একজন গৃহিনীর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প.. আত্মবিশ্বাস আর উদ্যোগ-ই পুঁজি
  • দুই প্রেমিকাকে একই সঙ্গে বিয়ে করলেন যুবক!
  • ১০ কি.মি হেঁটে অনলাইন ক্লাসে ১১ বছরের শিশু!
  • ছেলের সঙ্গে কলহ, কুকুরের নামে ২ একর জমি লিখে দিলেন কৃষক!
  • যমজ সন্তান গর্ভে, এর মধ্যে ফের গর্ভবতী এই তরুণী
  • জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) লেখা ‘আঙ্গুলের ছাপ নেই’!
  • ২৫০ কিলোমিটার গাড়ি চালিয়ে কৃষক আন্দোলনে বৃদ্ধা!
  • নিজেকে আবেদনময়ী করতে গিয়ে অস্ত্রোপচারে প্রাণ গেল মডেলের
  • error: Content is protected !!