কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরা, দেশ ও বিশ্বের সকল সংবাদ, সবার আগে

সালাম দিতে ভুল, খতিবকে ‍‍‍ছাগল-বেয়াদব বললেন ইউএনও! (ভিডিওসহ)

সালাম না দেয়ায় উপজেলা পরিষদ মসজিদের খতিবকে কট‚ক্তির অভিযোগ উঠেছে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলী বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই খতিব।

অভিযোগকারী কলারোয়া উপজেলা মসজিদের খতিব মোঃ মতিউর রহমান বলেন, “আমি তিন বছর ধরে কলারোয়া উপজেলা পরিষদ মসজিদের খতিবের দায়িত্ব পালন করছি। গত ১২ রবিউল আওয়াল মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) এর জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে কীভাবে ধর্মীয় অনুষ্ঠান করা যায় সেটি জানার জন্য গত ৮ অক্টোবর ইউএনও স্যারকে ফোন দেই। কিন্তু বেখেয়ালে সালাম দিতে ভুলে যাই। কিছুক্ষণ পর তিনি আমাকে আবার ফোন ব্যাক করে বলেন, ‘আমাকে সালাম করলেন না কেন? আমার স্বাক্ষরে আপনার বেতন হয়’।”

তিনি আরও বলেন, তখন আমি বলেছি, সামনে খেয়াল রাখবো। তখন তিনি (ইউএনও) বলেন, ‘আপনি তো বেয়াদব মানুষের মতো আচরণ করছেন। আপনি নিজে বেয়াদব মানুষকে কী শেখাবেন, বলে বকাবকি করেন।’ তখন আমি আবারও বলি, স্যার সামনে থেকে খেয়াল রাখবো। আমি একটু বেখেয়াল হয়ে গিয়েছিলাম।”

খতিব বলেন, ‘গত বুধবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ইসলামী ফাউন্ডেশন চিঠি দিয়ে আমাকে মিটিংয়ে আমন্ত্রণ জানালে আমি সেখানে উপস্থিত হই। সেখানে ইউএনও স্যার পূর্বের সালাম না দেওয়ার কথা তোলেন। তখন আমি বলি, স্যার আমি একটু বেখেয়াল হয়ে গিয়েছিলাম। এ ছাড়া আমি সবসময় সালাম দেই।’

ইউএনও বলেন, ‘আমার চেহারা কি এত ভালো যে আমার চেহারা দেখলে আপনি বেখেয়াল হয়ে যান? অন্যরা তো কেউ বেখেয়াল হয় না। আপনি বেখেয়াল হয়ে যান। বেয়াদব কোথাকার। বের হন, বের হয়ে যান এখান থেকে। যান, বের হয়ে যান।’ এর আগে বলেন, ছাগলটা এখনও বের হয়নি! এই বলে সেখান থেকে আমাকে বের করে দেন। এ ঘটনায় আমি জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

অভিযোগ রয়েছে, এর আগে মাস খানেক আগে মসজিদের মোয়াজ্জেম হাফেজ মাসুদুর রহমানকে তিনি বলেছেন, ‘আপনি কি গাঁজা খান?’ তিনি বলেন, ‘সুনামের সঙ্গে আমরা দায়িত্বপালন করছি কিন্তু এর আগে কখনো কোনো ইউএনও এভাবে আমাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেননি।’

মিটিংয়ে উপস্থিত থাকা ইসলামী ফাউন্ডেশনের ফিন্ড সুপার ভাইজার শাহজাহান কবির বলেন, “স্যার না বলায় সম্ভবত ইউএনও স্যার একটু মাইন্ড করেছেন। মূলত সে কারণে আমাদের মিটিংয়ে একটু ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন স্যার। বলছিলেন, ‘আমাকে দেখেই আপনি বেখেয়াল হয়ে যান। অন্য কেউ তো হয় না।’ এরপর তাকে মিটিং থেকে বের করে দেন।”

অভিযোগের বিষয়ে কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুলী বিশ্বাস বলেন, ‘আমি উপজেলা মসজিদ কমিটির সভাপতি। বিভিন্ন সময় তাদের সঙ্গে আমার মিটিং হয়। তবে কোনো খারাপ ব্যবহারের ঘটনা ঘটেনি।’

একই রকম সংবাদ সমূহ

কলারোয়ার সোনাবাড়ীয়ায় স্বপ্নচূড়া সমাজকল্যাণ সংস্থার সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

কলারোয়ার সোনাবাড়ীয়ায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নচূড়া সমাজকল্যাণ সংস্থার মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।বিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ার কয়লায় বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টে মাটিকুমরা একাদশ চ্যাম্পিয়ন

কলারোয়ার কয়লায় বঙ্গবন্ধু নক আউট ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় ঝিকরগাছার মাটিকুমরা একাদশবিস্তারিত পড়ুন

কলারোয়ায় সহকারী শিক্ষক মাওঃ নুরুল হকের পিতার দাফন সম্পন্ন

কলারোয়া শিশু ল্যাবরেটরী নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও কুশোডাঙ্গা ইউনিয়ন বিবাহবিস্তারিত পড়ুন

  • কলারোয়ায় ‘আশার আলো’ সংগঠনের ছাগল বিতরণ
  • কলারোয়ায় দুস্থ মহিলাকে ছাগল উপহার দিলো আশার আলো সংগঠন
  • সাতক্ষীরা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত
  • কলারোয়ার হঠাৎগঞ্জ হাইস্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসাবে বিমল চন্দ্র ঘোষের যোগদান
  • কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল ও দমদম হাইস্কুল পরিদর্শনে জেলা শিক্ষা অফিসার
  • কলারোয়ায় ডেঙ্গু নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযানে বেঙ্গল টাইগার মুক্ত স্কাউটস গ্রুপ
  • কলারোয়ার জয়নগরে ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে কালিপুজা অনুষ্ঠিত
  • কলারোয়ার চন্দনপুর ইউনাইটেড ডিগ্রী কলেজের সঙ্গে সোনালী ব্যাংকের চুক্তি স্বাক্ষর
  • কলারোয়ায় মহিলা স্বেচ্ছাসেবী সমিতির সদস্যদের অনুদানের চেক বিতরণ
  • কলারোয়ায় ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী খলিলুর রহমান আটক
  • কেঁড়াগাছিতে এড. কিনুলাল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টে কলারোয়ার জয়
  • কলারোয়ায় আ’লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা ও র ্যালি
  • error: Content is protected !!